পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১০৬ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত ব্ৰহ্মজ্ঞানপ্রচার ও সামাজিক অশান্তি । রাজ রামমোহন রায় ও র্তাহার বন্ধুগণের যত্নে ব্ৰহ্মজ্ঞান প্রচার হইতে লাগিল। অনেক সরলচিত্ত লোক রাজার গ্রন্থাদি পাঠ করিয়া তাহার মতে আকৃষ্ট হইতে লাগিলেন। বৃদ্ধের স্বভাবতঃই রক্ষণশীল ; সুতরাং নব্য সম্প্রদায়ের লোকের মধ্য হইতে অনেকে সত্যগ্রহণে অগ্রসর হইলেন। এই প্রকারে প্রাচীন ও নব্যতন্ত্রে মতভেদ উপস্থিত হওয়াতে অনেক পরিবারে পিতা-পুত্রের মধ্যে অশান্তি উপস্থিত হইল। সে ভয়ানক সময় ! এখন যজ্ঞোপবীত ত্যাগ করিলে বা বর্ণশঙ্কর বিবাহ করিলে সমাজচ্যুত হইতে হয়, তখন কেবল সমাজে উপস্থিত হওয়ার জন্ত কোন কোন ব্যক্তিকে সমাজচ্যুত इंड छ्लॆয়াছিল। ধৰ্ম্মসভা ; বাঙ্গালা ও পারস্যভাষায় সংবাদ পত্র। কেবল ব্ৰহ্মজ্ঞান ও পৌত্তলিকতা লইয়াই বিবাদ নহে। সতীদাহ বিবাদের একটি প্রধান বিষয়। ব্ৰহ্মজ্ঞান প্রচার ও সতীদাহ নিবারণের জন্য রামমোহন রায়ের প্রাণগত যত্ন দেখিয়া পৌত্তলিকগণ শঙ্কিত হইলেন ; এবং রামমোহন রায়ের পথে কণ্টক নিক্ষেপ করিবার উদ্দেশে ধৰ্ম্মসভা নামে একটি সভ সংস্থাপন করিলেন। ব্ৰহ্মজ্ঞান ও সতীদাহ নিবারণের পক্ষসমর্থন করিবার জন্য এবং সাধারণতঃ সকল হিতকর বিষয়ে লিখিবার জন্য এই সময়েরামমোহন রায় বাঙ্গালী ভাষায়"সংবাদ কৌমুদী” নামক একখানি সাপ্তাহিক সংবাদ পত্র প্রকাশ