পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৪২ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। বিধবাবিবাহ। কেহ কেহ বিশ্বাস করেন যে, রাজারামমোহন রায় বিধন বিবাহের পক্ষ সমর্থন করিয়া পুস্তক প্রকাশ করিয়াছিলেন। কিন্তু তাঙ্গর যে সকল গ্রন্থ প্রাপ্ত হওয়া গিয়াছে, তন্মধ্যে কোন গ্রন্থে বিধবাবিবাহের পক্ষে কোন প্রবন্ধ দেখিতে পাওয়া যায় না। আমরা শুনিয়াছি যে, বালিকা বিধবার পুনর্বিবাহ প্রচলিত হয়, রামমোহন রায় বন্ধুদিগের নিকটে এরূপ ইচ্ছা প্রকাশ করিতেন। তিনি বিলাত গমন করিলে সৰ্ব্বত্র জনরব হইয়া ছিল যে, স্বদেশে ফিরিয়া আসিয়া বিধবাবিবাহ প্রচলিত করি বেন। এপ্রকার জনরবের কোন মূল থাকিতে পারে ; কিন্তু তাহার সহমরণবিষয়ক পুস্তকের নিম্নোদ্ভূত স্থানটি পা করিলে স্পষ্ট বোধ হয় যে, তিনি অন্ততঃ উক্ত পুস্তক লিখিবা সময় পর্যন্ত বিধবাবিবাহ শাস্ত্রসিদ্ধ বলিয়া মনে করিতেন না। সহমরণবিষয়ক পুস্তকের সে স্থানটি এই —“শেষে লেখেন যে তন্ত্রবচনানুসারে বিধবার ব্রহ্মচৰ্য্য অনুচিত এবং মনুষ্যে গোমাংস ভোজন কৰ্ত্তব্য, এবং বিধবার পুনৰ্ব্বার বিবাহ উচিত এ সকল বিষয়ের অনুমতির নিমিত্ত রাজদ্বারে আবেদন কর যায়। উত্তর ; ঐ সকল তন্ত্র বচনের যদি বেদ ও মানবাীি স্কৃতির সহিত এক বাক্যতায় মুগ্ধবোধচ্ছাত্রের বিশ্বাস হইয় থাকে ও নিবন্ধকারদের মীমাংসাসন্মত হয় এরূপ র্তাহার নিশ্চ হইয় থাকে, তবে তিনি অগ্রে অবাধেই একৰ্ম্মে প্রবর্ত হইতে পারেন ; কিন্তু যাহার। ঐ বচন সকলের অনৈক্য জানেন ।