পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সামাজিক ও রাজনৈতিক আন্দোলন। ১৫১ শিক্ষার পক্ষ ছিলেন, তাহাদেরই জয় হইল। হিন্দুকালেজ সংস্থাপন জন্ত যে কমিটী হইয়াছিল, রামমোহন রায় তাহার একজন সভ্য ছিলেন। কিন্তু পৌত্তলিক হিন্দুগণ ইহাতে আপত্তি উপস্থিত করায়, তিনি উক্ত পদ তৎক্ষণাৎ পরিত্যাগ করিলেন। তিনি স্বভাৱসিদ্ধ উদারতার সহিত বলিয়াছিলেন,—“আমি কমিটিতেথাকিলে যদি কালেজের লেশ মাত্রও অনিষ্টের সম্ভাবনা থাকে, তাহা হইলে আমি সে সম্মানের প্রয়াসী নহি ।” ডফ সাহেবকে সাহায্যদান । ইংরেজীশিক্ষা প্রচলিত করিবার জন্ত রাজা রামমোহন রায়ের যে একান্ত যত্ন ছিল তদ্বিষয়ে অধিক কিছু বলিবার প্রয়োজন নাই। তথাচ আমরা আর দুইটী ঘটনার উল্লেখ করিব । খৃষ্টধৰ্ম্ম প্রচারক মহাত্মা ডক সাহেব ১৮৩০ খৃষ্টাকে এদেশে আগমন করেন। তিনি রাজা রামমোহন রায়ের সহিত সাক্ষাৎ করিয়া বালকদিগের ইংরেজী শিক্ষার জন্ত একটা বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত করিবার অভিপ্রায় প্রকাশ করিলেন। রামমোহন রায় তাহার প্রস্তাব শুনিয়া যারপর নাই আলোদ প্রকাশ করিলেন। তিনি তদ্বিষয়ে তাহাকে যথেষ্ট সাহায্য করিয়াছিলেন। বিদ্যালয়ের ব্যবহারের জন্য তিনি ডফ সাহেবকে প্রথমে ব্রাহ্মসমাজের গৃহ ছাড়িয়া দেন। যত দিন বিদ্যালয়ের নিজের গৃহ না হইয়াছিল, ততদিন উক্ত স্থানেই উহার কার্য্য হইত। নুতননিৰ্ম্মিত নিজগৃহে সমাজ উঠিয়া আসিবার সময়ে রামমোহন রায় কমল বসুর