পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৫৪ মহাত্ম রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। হইয়াছিল। তাহার ভাষা নিতান্ত কদৰ্য্য ও দুর্বোধ্য, সুতরী: তাহা সাধারণের মধ্যে প্রচলিত হয় নাই এবং কেহ তাছার রচনাপ্রণালী অনুকরণ করে নাই। যে বাঙ্গালা গদ্য ক্রমশ: উন্নতিলাভ করিয়া বৰ্ত্তমান আকার ধারণ করিয়াছে, রামমোহন রায়ই তাছার ভিত্তিমূল সংস্থাপন করিয়া গিয়াছেন। তাহার রচনা যারপর নাই প্রাঞ্জল ও স্থবোধ্য । কালসহকারে ভাষার অনেক পরিবর্তন হইয়াছে বলিয়। রামমোহন রায়ের রচন এখনকার লোকের সম্পূর্ণ রুচিসংগত ন হইতে পারে ; কিন্তু পঞ্চাশং বৎসর পূৰ্ব্বে তাঁহাই সৰ্ব্বোৎকৃষ্ট রচনা ছিল। র্তাহার দ্বারা বাঙ্গালা গদ্য-সাহিত্য যে অনেক পরিমাণে উন্নতি লাং করিয়াছে, তাহাতে কিছুমাত্র সংশয় নাই। র্তাহার প্রণীত গ্রন্থের অধিকাংশই ধৰ্ম্ম ও সমাজ-সংস্কাঃ সম্বন্ধীয়। তিনি ধৰ্ম্ম ও সমাজসংস্কারক ছিলেন ; সুতরাং তাহার পক্ষে ঐ প্রকার হইবারই কথা । তথাচ তিনি অন্ত বিষয়েং কোন কোন পুস্তক লিখিয়াছিলেন। আমরা ক্রমে তাহা উল্লেখ করিব । ব্ৰহ্মজ্ঞান ও সহমরণ নিবারণ বিষয়ে তাহার কয়েকখানি পুস্তকের বিষয় আমরা পূৰ্ব্বে বলিয়াছি। এক্ষণে র্তাহার প্রচা রিত আর কয়েকখানি পুস্তক ও পত্রিকার বিষয় বলিতে প্রবৃত্ত হইলাম । গৌড়ীয় ব্যাকরণ। উক্ত পুস্তক সম্বন্ধে তাহার গ্রন্থ প্রকাশক বলেন, “রামমোহন