পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৬২ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। নিযুক্ত হইতেন। অনেক ব্যক্তির এই প্রকার সংস্কার আছে যে, যিনি পরমার্থ বিষয়ে মনোনিবেশ করেন, তিনি রাজনৈতিক বিষয়ের সহিত কোন রূপ সংস্রব রাখিতে পারেন না । ধৰ্ম্মন্ত্র কেবল ধৰ্ম্ম লইয়৷ থাকিবেন, রাজনীতির সহিত র্তাহার কোন সম্বন্ধ থাকিবে না। আবার যিনি রাজনীতিজ্ঞ তিনি কেবল রাজনীতির আলোচনাতেই ব্যস্ত থাকিবেন, ধৰ্ম্মের সহিত তাহার কোন সম্পর্ক নাই। ইহা নিতান্ত ভ্ৰমাত্মক ও অনিষ্টকর মত। ধৰ্ম্ম ঈশ্বরের , রাজনীতি কি সয়তানের ? যাহা কিছু সত্য, পবিত্র ও হিতকর তাঁহাই ঈশ্বরের। মানব জীবনের প্রত্যেক বিভাগের সহিত পরমেশ্বরের সম্বন্ধ। প্রকৃত জ্ঞানবা ধৰ্ম্মজ্ঞের নিকট এ সত্য প্রচ্ছন্ন থাকে না। এ বিষয়ে আমাদের দেশে ব্রহ্মনিষ্ঠ জনক রাজার জাজ্জল্যমান দৃষ্টান্ত রহিয়াছে। মহর্ষিগণ যেমন ব্ৰহ্মজ্ঞান ও ধৰ্ম্মতত্ত্ব বিষয়ে রাশি রাশি জ্ঞানগর্ভ গ্রন্থ রচনা করিয়া গিয়াছেন, সেইরূপ রাজনীতি সম্বন্ধেও তাহ! দিগের রচিত গ্রন্থের অভাব নাই। তাহারা নির্জন অরণ্যে বসিয়া কেবল ব্ৰহ্মজ্ঞান আলোচনা ও তপস্যা করিতেন এরূপ নহে । তাহেেদর মধ্যে প্রধান প্রধান সকলেই ব্রহ্মনিষ্ঠ গৃহস্থ ছিলেন। রাজনীতি ও সমাজনীতি তাহদের বিশেষ আলোচ বিষয় ছিল । সমুদায় স্মৃতিশাস্ত্র তৎপক্ষে উচ্চৈঃস্বরে সাক্ষাদান করিতেছে। প্রাচীন হিন্দু রাজাগণ যে তাঁহাদের পরাম" লইয়। রাজকাৰ্য সম্পাদন করিতেন, সমুদায় সংস্কৃত সাহিত তাহার অসংখ্য প্রমাণ প্রদর্শন করিতেছে। বর্তমান শতাব্দীতে ইয়োরোপে রাজনীতি সম্বন্ধে জোজেফ ম্যাটসিনির ন্যায় অসামা