পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


{ ১৭৪ মহাত্মা রাজ রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। প্রাপ্য, তাহাকে তাহাই দেওয়া হইতেছে। বাদসাহ উক্ত উভয় সভায় অকৃতকাৰ্য্য হইয়া ইংলণ্ডাধিপতির নিকট আবেদন করিতে সঙ্কল্প করিলেন । এবং রামমোহন রায়কে সনদ দ্বার রাজা উপাধি দিয়া এ বিষয়ে উপযুক্ত ক্ষমতা প্রদান পূৰ্ব্বক বিলাতপ্রেরণ করা স্থির করিলেন। বিলাতগমন সম্বন্ধে দেশবাসীগণ ও আত্মীয়গণ । আমরা পূৰ্ব্বেই বলিয়াছি যে,রামমোহন রায়েরবিলাতযাত্রার কথা শুনিয়া দেশের লোক আশ্চর্য্য হইয়াছিল। একজন সদ্বংশজাত ব্রাহ্মণসন্তান গোখাদক ম্লেচ্ছদিগের দেশে যাইতেছে, ইহাতে তাহাদের বিরক্তি ও ঘৃণার ইয়ত্ত রহিল না। র্তাহার পৌত্তলিক আত্মীয় স্বজনের যার পর নাই দুঃখিত হইলেন ; এই “গর্হিঃ কাৰ্য্য” হইতে র্তাহাকে প্রতিনিবৃত্ত করিবার জন্য নানাপ্রকাঃে বুঝাইতে লাগিলেন। “জাতি যাইবে,পৈতৃক সম্পত্তি হারাইংে হইবে” তাহাকে এই সকল সাংসারিক ভয় প্রদর্শন করিত্বে লাগিলেন। কিন্তু যে রামমোহন রায় স্বদেশবাসীগণের সক প্রকার অত্যাচার ধীরভাবে সহ্য করিয়াছিলেন, যে রামমোহ রায় ধৰ্ম্ম ও সমাজ-সংস্কারে প্রবৃত্ত হইয়৷ অশেষ প্রকার বাধাবি বীরের ন্যায় অতিক্রম করিয়াছিলেন, যে রামমোহন রায় তাহা উদেগুসাধন জন্য কুলংকারান্ধ ব্রাহ্মণদিগের অভিশম্পাৎ, ধৰ্ম্ম সভার প্রবল আক্রমণ, এবং নিৰ্ব্বোধ চিন্তাশূন্ত দেশবাসীগণে নিন্দ, বিক্রপ, ও তিরস্কারকে অঙ্গের আভরণ বলিয়া মে করিয়াছিলেন, সেই রামমোহন রায় জ্ঞাতি কুটুম্বের পরাম’ে অনুরোধে বা ক্ৰন্দনে, কৰ্ত্তব্যজ্ঞানের অনাদর পূর্বক, স্বদেশে