পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সামাজিক ও রাজনৈতিক আন্দোলন। ১৭৫ হিতব্ৰতে জলাঞ্জলি দিয়া আপনার প্রতিজ্ঞ পরিহার করিবার লোক ছিলেন না। যে ষোড়শবৎসর বয়স্ক বালক ভয়ঙ্কর দুর্গম পথ অতিক্রম করিয়া, গিরিশৃঙ্গ উন্নজনপূর্বক তিব্বতযাত্রা করিয়াছিল, এক্ষণে সেই ব্যক্তি পরিণত বয়সে সকল বিস্ত্র বাধা অগ্রাহ্য করিয়া সম্পত্তিচু্যতির সম্ভাবনায় শঙ্কিত না হইয়া, আত্মীয়স্বজন পরিবারগণের অশ্রুজলে অবিচলিত থাকিয়া জন্ম ভূমির হিতকামনায় অকুল সাগরপারে গমন করিতে উদ্যত হুইল। যে দেশবাসীরগণের হস্তে ভারতের ভাগ্য ন্যস্ত হইয়। রহিয়াছে, যে দেশে বিজ্ঞান ও দর্শন, সভ্যতা ও স্বাধীনতা আশ্চৰ্য্য উন্নতি লাভ করিয়াছে, নিউটন ও বেকন, সেক্সপীয়ার ও মিণ্টন, যে দেশের গৌরব মুসভ্য জগতের সম্মুখে চিরদিন উজ্জ্বল রাখিয়াছেন, সেই দেশ দর্শন করিয়া চক্ষু সার্থক করিবার জন্য তিনি প্রস্তুত হইলেন। বিলাতগমনের পূৰ্ব্বে তথায় রামমোহন রায়ের খ্যাতি । কোন ভক্তিভাজন প্রাচীন ব্যক্তির + নিকট আমরা শুনিয়াছি যে, তাহার বিলাতযাত্রার দিন, তিনি তাহার বন্ধু বাবু দ্বারকানাথ ঠাকুরের বাটতে আসিয়াছিলেন। উাগকে দেখিবার জন্য এত লোক আসিয়াছিল যে, লিড়ীতে পর্যাস্তু লোকের জনতা হইয়াছিল। তিনি বিলাতে যাইবার পূৰ্ব্বেই

  • মহর্ষি দেবেন্দ্ৰ নাথ ঠাকুর।