পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/১৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৮৮ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। আসিয়ছিল। তথায় সে রামমোহন রায়ের যশের কথা শুনি লোয়ার সারকিউলার রোডে তাহার বাট দেখিতে গিয়াছিল গৃহস্বামীর সহিত তাহার সাক্ষাৎ হয় নাই ; কিন্তু গৃহের কুপ্রশ প্রাঙ্গন হইতে তাহার স্মরণার্থ চিহ্নস্বরূপ একটি দ্রব্য কুড়াই লইয়া আসিয়াছিল, এবং দেশে পুনরাগমনের পরেও উহা যঃ পূৰ্ব্বক রক্ষা করিয়াছিল। সে ব্যক্তি সামান্ত অবস্থার লো হইলেও রামমোহন রায় তাহাকে দেখিয়া অত্যন্ত আহলা প্রকাশ করিলেন । উইলিয়ম রস্কোর সহিত সাক্ষাৎ । লিভারপুলে নুপ্রসিদ্ধ উইলিয়ম্ রস্কোর সহিত রামমোহ রায়ের সাক্ষাৎ হইয়াছিল। রস্কোর চরিতাখ্যায়ক বলেন “তিনি অল্প বয়সে খৃষ্টের উপদেশ সকল সংগ্ৰহ করিয়া একখাf পুস্তক করিয়াছিলেন কিন্তু উহা সমাপ্ত করিতে পায়েন নাই রামমোহন রায়ের थुप्हेब्र Ēri:Tai Hesjē (Precepts of Jesus)Tí করিয়া তাহার নিজের প্রথম বয়সের কার্য্য স্মরণ হইল। কেব তাহাই নহে ; রামমোহন রায়ের বৃত্তান্ত তিনি যতই অবগ হইতে লাগিলেন, ততই তাহার প্রতি অধিকতর শ্রদ্ধা জন্মি:ে লাগিল। তিনি জানিতে পারিলেন যে, রামমোহন রায় যে কেবল পৌত্তলিকতা ও কুসংস্কার পরিত্যাগ করিয়াছেন এরূপ নহে, তিনি তাহার বুদ্ধিবৃত্তি সকলেরও এতদূর উন্নতি সাধন করিতে পারিয়াছেন যে, সুসভ্য দেশে ও অতি অল্প লোকেরই সে প্রকার ঘটিয়া থাকে।