পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৯৮ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। মনোযোগের সহিত র্তাহার কার্য্যের উন্নতি দেখিতাম ? তাহার কার্য্যের জন্ত আমরা জয়ধ্বনি প্রদান না করিলেও, অন্তত: আমাদের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ না করিয়া কি আমরা থাকিতে পারি? একদিন যে আমরা তাহাকে এই ইংলও ভূমিতে অভ্যর্থনা করিতে পারিব, ইছ আমাদের নিকটে একটা সুখময় স্বপ্নস্বরূপ ছিল। উহা একটি আশা হইলেও অতি ক্ষীণ আশা ছিল। উহা যে কখন বাস্তব ঘটনায় পরিণত ; হইবে তাহা বিশ্বাস করিতে আমরা সাহস করি নাই ।” তৎপরে বাউরিং সাহেব বলিলেন যে, রামমোহন রায় আমাদের মধ্যে উপস্থিত হইয়াছিলেন, এই স্কৃতি আমাদের পক্ষে এতদূর আনন্দজনক হইবে, যে অদ্যকার দিন আমাদের ইতিহাসের একটি যুগস্থষ্টি করিয়াছে বলিয়া গণ্য হইবে। অদ্য এই ব্রাহ্মণ আমাদের মধ্যে দণ্ডায়মান হইয়া আমাদের অভ্যর্থনা গ্রহণ করিলেন, এবং তাহার অতীত ও ভাবী কাৰ্য্যের প্রতি আমরা যে সহানুভূতি প্রকাশ করিলাম,ইহা কখন কেহ ভুলিতে পারিবে না। তিনি যে সকল মহৎ কার্য্যে নিযুক্ত হইয়াছেন, আমরা যদি কোন প্রকারে তাহার সাহায্য করিতে পারি, তাহা হইলে আমাদের অতিশয় আননা হইবে ।” বাউরিং সাহেবের বক্তৃতা শেষ হইলে আমেরিকার যুক্ত to otété froßstättä (Harvard University) issপতি ডাক্তার কারক্লাও বলিলেন, “ইহা সকলেই জানেন যে, আমেরিকাবাসীগণ রাজা রামমোহন রায়ের বিষয় অত্যন্ত মনোযোগের সহিত চিন্তা করিয়া থাকেন। তিনি একবার