পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২১৪ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। বিরোধ ; ইহা স্তায় ও অন্যায় এবং উচিত ও অনুচিতের মধ্যে বিরোধ। কিন্তু ভূতকালের ঐতিহাসিক ঘটনা সকলের বিষয় চিন্তা করিলে পরিষ্কার রূপে বুঝা যায় যে অত্যাচারী শাসনকর্তা এবং গোড়ার অন্তায় দৃঢ়তার সহিত বাধা দিলেও ধৰ্ম্ম ও রাজনীতির উদার মত সকল ক্রমে ক্রমে অথচ দৃঢ়ৰূপে প্রতিষ্ঠিত হইতেছে। আমরা পূৰ্ব্বে বলিয়াছি যে, সকল শ্রেণীর লোকের প্রতি রাজা রামমোহন রায়ের ব্যবহার অতি সুন্দরও চমৎকার ছিল। তাহার মধুর ব্যবহারে সকলেই মোহিত হইত। কোন ব্যক্তির মতের প্রতিবাদ করিতে গিয়াও তিনি এমন ধীর ও শাস্তভাবে .তাহা করিতেন যে, সে ব্যক্তির মনে কোন ব্যথা না লাগে। ইংলণ্ডের কোন ভদ্রলোকের বাটতে বসিয়া এমন ভাবে মৌলিক পাপ (Original Sin) বিষয়ে একটী কথা বলিলেন যাহাতে বুদ্ধ গেল যে তিনি উক্ত মতে বিশ্বাস করেন না । সেখানে এমন একটা ভদ্র মহিলা উপস্থিত ছিলেন যিনি ইহাতে চমকিত হইয় রাজাকে জিজ্ঞাসা করিলেন মহাশয় আপনি উক্ত মতে অবশু বিশ্বাস করেন ? রামমোহন রায় স্ত্রীলোকটর মুখ পানে তাকা ইলেন। স্ত্রীলোকটর মুখে লজ্জা প্রকাশ পাইল। এক মুহু ৰ্ত্তের মধ্যেই সকলই বুঝিয়া লইলেন এবং অতি ধীরভাবে অবনত হইয়া বলিলেন আমি বিশ্বাস করি যে এই মত দ্বারা অনেক সংলোকের পক্ষে খ্ৰীষ্টীয় নীতির মধ্যে উচ্চতম ধৰ্ম্ম যে বিন তাহার উন্নতি হইয়াছে ; আমার পক্ষে আমি বলিতে পারি যে, আমি এই মতের প্রমাণ কখন প্রাপ্ত হুই নাই। সেই স্ত্রী