পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২১৬ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। কেহ অধিক সন্মান প্রদর্শন করিত না। একটী ঘটনায় আমি আশ্চর্য্য হইয়া ছিলাম। এক দিবস তিনি আমাদের বাটতে আসিয়া,আমাকে কিম্বা বালকটকে না দেখিয়া প্রতীক্ষা করিতে লাগিলেন এবং বলিলেন, ঐ শিশুটকে আমি আর একবার দেখিতে ইচ্ছা করি। এই ঘটনাট ব্রিষ্টলে কুমারী কাসেলের বাটতে যাইবার পূৰ্ব্বে ঘটিয়াছিল। সেই খানে তাহার মৃত্যু হয়। ইহা স্থির হইল যে রামমোহন রায় যখন ব্রিষ্টল নগরে গমন করিবেন, তথায় ষ্টেপলটন্‌ গ্রোভ নামক একটা সুন্দর ভবনে কুমারী কিডেল এবং কুমারী কাসেলের অতিথীরূপে অবস্থিতি করিবেন। কুমার কাসেলের অনেক সম্পত্তি ছিল, কিন্তু তখন তিনি নাবালিক। মিস্ কাপেন্টারের পিতা স্বপ্রসিদ্ধ ডাক্তার কার্পেণ্টার তাহার অভিভাবক ছিলেন। কুমারী কিডেল, কাসেলের মাতুলানী এবং তাহার অভিভাবিক। ডাক্তার কার্পেণ্টার এই দুইটী স্ত্রীলোকের সহিত লণ্ডন নগরে রামমোহন রায়ের পরিচয় করিয়া দেন। ক্টহেন রায় ইংলওঁীয় সমাজের সহিত বিশেষরূপে মিশিয়াছিলেন। সকল প্রকার সামাজিক আমোদ প্রমোদেও অবকাশানুসারে যোগ দিতেন। র্তাহার একখানি পত্রে আমরা জানিতে পারিতেছি যে, তিনি এক দিবস তাহার বন্ধুগণের সহিত আসলিস থিয়েটার নামক নাট্যশালায় অভিনয় দেখিতে গিয়াছিলেন । 哆 রষ্টলগমনের সংকল্প ও ভারতবর্ষীয় রাজনীতি । এই সময়ে ভারতবর্ষীয় রাজনীতি সম্বন্ধে পালেমেণ্টে বিচার