পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২২৪ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। কুমারী কাপেন্টার বলেন যে, ব্রিষ্টলের লোক রাজা রামমোছন রায়কে প্রায় আট বৎসর পূর্ব হইতে জানিতেন। কলিকাতায় একটা ইউনিটেরিয়ন্ত্ৰ মতে উপাসনালয় সংস্থাপনের জন্ত উক্ত উপাসকমণ্ডলীর নিকটে একবার সাহায্য প্রার্থনা করা হইয়াছিল। সেই সময়ে রাজা রামমোহন রায় ভারতবর্ষে ধৰ্ম্ম ও অন্যান্ত বিষয়ে কিরূপ মহৎ কার্য্যে নিযুক্ত আছেন, তাহা তাহদিগকে অবগত করা হইয়াছিল! সেই জন্য তিনি ষে দিন উক্ত উপাসনালয়ে আসেন, তাছাকে উপাসকমণ্ডলীর সভ্যগণ অত্যন্ত সমাদরের সহিত অভ্যর্থনা করিয়াছিলেন। ইউনিটেরি য়ুন উপাসনালয় ভিন্ন, রামমোহন রায় ব্রিষ্টলের অন্যান্ত খ্ৰীষ্ট সম্প্রদায়ের উপাসনালয়ে উপস্থিত হইতে ইচ্ছা প্রকাশ করিয়া, ছিলেন। র্তাহার উদার হৃদয় সম্প্রদায়বিশেষে বদ্ধ ছিল না। লগুনে অবস্থিতি কালে, তিনি সম্প্রদায় নিৰ্ব্বিশেষে সৰ্ব্বপ্রকার খ্ৰীষ্টীয় সম্প্রদায়ের উপাসনালয়ে উপস্থিত হইতেন। পাঠকবর্গের স্মরণ আছে যে, সপ্তদশবর্ষ পূৰ্ব্বে রাজা রাম মোহন রায় শ্রীরামপুরের কেরি সাহেবের বাটীতে গিয় তাহাদের পায়িবারিক উপাসনায়ু যোগ দিয়াছিলেন। কেরি সাহেব র্তাহাকে একখানি ওয়াট সাহেবের ধৰ্ম্মসঙ্গীত পুস্তক উপহার দিয়াছিলেন। রামমোহন য়ায় উপহার পাইয়। বলিয়াছিলেন, আমি ইহা আমার হৃদয়ে সঞ্চয় করিয়া রাখিব। বাস্তবিকই তিনি উহ। তাহার হৃদয়ে সঞ্চয় করিয়া রাখিয়াছিলেন। ডাক্তাঃ কার্পেণ্টার বলেন,—“রামমোহন রায় কোন উপাসনালয়ে গমন করিবার পূৰ্ব্বে ওয়াট সাহেবের রচিত শিশুদিগের জন্ত ঈশ্বর