পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৪৪ সহায় রাজ রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। তদনুরূপ। রামমোহন রায় ভট্টাচার্য্যের নিকট মহা শাস্ত্ৰজ্ঞ, গ্ৰীষ্টয়ান মিসনরির নিকট Great Theologian (মহা ধৰ্ম্মতত্ত্বঞ্জ) মৌলবিদিগের নিকট “জবরদস্ত মৌলবি” ছিলেন । পাঠকবর্গ পূৰ্ব্বেই অবগত হইয়াছেন যে, রামমোহন রার পারষ্ঠ ভাষায় তোহফ ভুল মোছদিন নামক একখানি ধৰ্ম্ম গ্রন্থ প্রণয়ণ করিয়া ছিলেন। উহার ভূমিকা আরবি ভাষায় লিখিত । কেবল ইহাই নহে । রামমোহন রায় ভাষাবিং পণ্ডিতের নিকট বহুভাষাভিজ্ঞ মতা পণ্ডিত ; সাহিত্য শাস্ত্রের পণ্ডিতের নিকট শান্ধিক ও সাহিত্যক্ষ ; দার্শনিকের নিকট দার্শনিক ; রাজনীতিজ্ঞের নিকট রাজনীতিজ্ঞ ; বিষয়ীর নিকট একজন স্বতীক বিষয়বুদ্ধিসম্পন্ন ব্যক্তি ছিলেন। রামমোহন রায়ের ভাষাজ্ঞান ও ভাষা শিক্ষা করিবার শক্তি বিষয়ে আমরা অনেক কথা বলিয়াছি । এস্থলে আর একটী গল্প বলিব । দাক্ষিণাত্য হইতে কোন ব্যক্তি তংপ্রদেশীয় ভাষায় রামমোহন রায়কে একখানি পত্র লিথিয়ছিলেন । রামমোহন রায় উছ বুঝিতে পারিলেন না । কলিকাতা প্রবাসী সেই প্রদেশের একটী লোককে ডাকাইয়া উহ। পড়াইয়া লইলেন । পড়াইয়া লইয়। তাছার ইচ্ছা হইল যে, সেই ভাষা শিক্ষা করেন। সেই ব্যক্তির নিকটে, তিন মাসে ভাষাটী শিথিয় ফেলিলেন । শিক্ষা করিয়া যে ব্যক্তি তাহাকে দক্ষিণাত্য হইতে পত্র লিখিয়াছিলেন, তাহাকে তিনি তাহার নিজের ভাষায় স্বয়ং উত্তর লিখিয়াদিলেন । ইংরেজী ভাষায় রামমোহস রায়ের কিরূপ অধিকার ছিল