পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২৫১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৪৬ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। প্রাচীন ভারতবর্ষীয় দর্শনের সহিত তুলনা করিলে, ইংলণ্ডের দশন কিছুই নহে। বাস্তবিক রামমোহন রায়ের সময়ে ইংলওঁীয় দর্শনের ঘেরূপ অবস্থা ছিল তাঙ্কাতে উক্ত দর্শন সম্বন্ধে তাহার অধিক শ্রদ্ধা না হওয়া আশ্চর্য্য নহে । রামমোহন রায় আইনজ্ঞ দিগের মধ্যে আইনজ্ঞ। তাহার রচিত আইন সম্বন্ধীয় পুস্তক সকল তাছার আইন বিষয়ক গভীর জ্ঞান প্রকাশ করিতেছে। রামমোহন রায়ের বিগত স্মরণার্থ সভার সভাপতি শ্ৰীযুক্ত অনারেবল গুরুদাস বন্দ্যোপাধ্যায় মহাশয় বলিয়াছেন, রামমোহন রায় আইন সম্বন্ধে যেরূপ প্রবন্ধ সকল রচনা করিয়াছেন, ঐরূপ লিখিতে পারিলে যে কোন ব্যবহারাজীবের পক্ষে উহা সম্মান ও প্রশংসাপ্রদ হইত। তাহার বিষয়-বুদ্ধির কথা কি বলিব ! একটা কথা বলিলেই যথেষ্ট হইবে । দ্বারকানাথ ঠাকুরের মত লোকও অনেক সময় প্তাঙ্গার পরামর্শ লইয়া কাজ করিতেন। তাহার সময়ের অনেক প্রধান প্রধান ব্যক্তি, অনেক জমি দার, বৈষয়িক বিষয়ে তাহার নিকটে সৎপরামর্শ লাভ করিয়া উপকৃত হইতেন বলিয়া, তাহার। তাছার সমাজে অর্থ সাহায্য করিতেন। র্তাহার প্রচারিত ধৰ্ম্মের তাহারা কিছু বুঝিতেন ন। ব্রহ্মজ্ঞানের প্রতি তাহাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা ছিল না ; কিন্তু তাহার পরামর্শে র্তাহীদের বৈষয়িক উপকার হইত বলিয়া তাহারা তাহার সমাজে সাহায্য দান করিতেন । আমরা বলিয়াছি তিনি রাজনীতিজ্ঞ ও আইনজ্ঞ ছিলেন । সাধারণ লোকের মধ্যে হিতকর জ্ঞানপ্রচারের জন্ত তিনি