পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২২ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত । তিনি নারীজাতির প্রতি চিরদিন শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা অনুভব করেন ।” * তিনি হিমালয়ের উত্তরবর্তী আরও কয়েকটা দেশ ভ্রমণ করেন, কিন্তু আমরা তাহার বিশেষ বিবরণ কিছু বলিতে পারি না। যদি তিনি তাহার এই সকল ভ্রমণবৃত্তান্ত বিষয়ে কোন গ্রন্থ রচনা করিতেন, নিশ্চয়ই উহা একটা অতি উপাদেয় পদার্থ হইত। ব্রাহ্মসমাজ প্রতিষ্ঠার পর তিনি “সংবাদ কৌমুদী” নামক একথানি পত্রিক প্রচার করেন। তাহাতে বালাত্রমণ" সম্বন্ধে কয়েকট প্রবন্ধ লেখেন ; কিন্তু দুঃখের বিষয়, বহু অন্নসন্ধানেও কৌমুদী এক্ষণে কোথাও পাওয়া যায় না।

  • প্রায় এক শতাব্দী পূৰ্ব্বে একজন বাঙ্গালী বালক তিব্বং দেশে গমন করিয়া তথায় কিছুকাল বাস করিয়াছিল, এরূপ অদ্ভুত কথায় কোন কোন বুদ্ধি মান ব্যক্তি সংশয় প্রকাশ করেন। বাস্তবিক রামমোহন রায়ের জীবনের এই ঘটনাটা এতই আশ্চর্যা যে, উহাতে সংশয় হওয়া নিতান্ত অসঙ্গত নহে। কিন্তু যখন আমরা কুমারী কাপেন্টারের সাক্ষ্য পাইতেছি যে, রামমোহন রায় স্বয় র্তাহার তিব্বং গমন বিষয়ে ইংলওে উহাদের নিকট গল্প করিয়াছিলেন, তখম এই ঘটনা সম্বন্ধে সন্দেহ করিবার লেশমাত্র কারণ দেখা যায় না। উহাতে রামমোহন রায়ের আশ্চৰ্য্য অসাধারণত্বই প্রকাশ করে। সামান্ত মনুষ্যের সামাঙ্ক জীবনের সামান্ত ঘটনা সকল দেখিয়া মহা পুরুষদিগের অদ্ভুত জীবনের অদ্ভুত ঘটনা নিচয়ের বিচার করিতে যাওয়া কখনই বিবেচনাসিদ্ধ কাৰ্য্য নহে। "

MAAASA SAASAASSSLLLSAAA