পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/২৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাঙ্গা রামমোহন রায়ের ধৰ্ম্ম বিষয়ক মত । ২৭৩ চইয়াছে। উল্লিখিত শাস্ত্র সমুদায়কে পরমপুরুষাৰ্থ সাধক ভ্রান্তি বর্জিত বলিয়া বিশ্বাস থাকিলে ঐ সকল স্বযুক্তি সম্পন্ন সদবাক্য তাহার লেখনী হইতে কদাচ নিস্থত হইত না ।” যাহার রামমোহন রায়কে বৈদান্তিক বলিয়া স্থিরনিশ্চয় করি, য়াছেন,তাহাদিগের সেরূপ বিশ্বাসের অবত যুক্তি আছে। যুক্তি এই যে, তিনি পৌত্তলিকদিগের সহিত বিচারে বেদাদি শাস্ত্রের প্রমাণ প্রয়োগ দ্বারাই ব্ৰহ্মজ্ঞানের প্রয়োজনীয়তা প্রতিপন্ন করিয়াছিলেন। তিনি কখন বলেন নাই যে, বেদ বেদাস্তাদি শাস্ত্র মিথ্যা। প্রত্যুতঃ পৌত্তলিক মতাবলম্বীদিগের সহিত ধৰ্ম্মবিচারে প্রবৃত্ত হইয়া বৈদিক প্রমাণের উপরে সম্পূর্ণরূপে নির্ভর করি য়াছিলেন। যাহার কেবল এই যুক্তিটা অবলম্বন করিয়া রামমোহন রায়কে বৈদান্তিক বলিয়া মীমাংসা করিয়াছেন, তাছাদিগের ভ্রম হইয়াছে। বিভিন্ন ধৰ্ম্মাবলম্বীদিগের সহিত রামমোহন রায়ের বিচারপ্রণালী তাহারা বুঝিতে পারেন নাই। তিনি কখনই শাস্ত্র নিরপেক্ষ যুক্তির আশ্রয় লইয়া কোন ধৰ্ম্মাবলম্বীর সহিত ধৰ্ম্মবিচারে প্রবৃত্ত হইতেন না। হিন্দুর নিকটে cदशानि भाज़, भूर्भेब्रारमब्र निकल्ले दाद्दे८तश, હિર मूलगनिद्र নিকট কোরান অবলম্বন পূৰ্ব্বক তাহার নিজ মত প্রচারের চেষ্ট করিতেন । “তোমার শাস্ত্র মিথ্যা” একথা তিনি কোন ধৰ্ম্মাবলীকে কখন বলিতেন না। প্রত্যেক ধৰ্ম্মাবলম্বীর নিকট · স্বীয় স্বতীয় বুদ্ধি সহকারে তাহার অবলম্বিত শাস্ত্র হইতে সত্য রন্ধু সকল উদ্ধার করিয়া দিতেন । অসাধারণ পাণ্ডিত্য সহকারে তিনি হিন্দুশাস্ত্র সম্বন্ধে ইছাই প্রতিপন্ন করিয়াছিলেন যে, কি