পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৪২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গৃহপ্রত্যাগমন, শাস্ত্রচর্চা, পুনৰ্ব্বৰ্জন ও বিষয়কৰ্ম্ম । ৩৭ তাহার চিরস্থায়ী রাজস্ব নিৰ্দ্ধারণ করিবার ভার দেওয়া হয়। কোন কোন কালেক্টরের প্রতি দুই তিন জিলার ভার পড়িয়াছিল; ডিগবি সাহেবের প্রতি রংপুর, দিনাজপুর এবং পূর্ণিয় জিলার বন্দোবস্ত করিবার ভার অর্পিত হয় । উক্ত কার্য্যে তাহাকে তিন বৎসর নিযুক্ত থাকিতে হইয়াছিল। এতদূর সুবিচার ও দ্যায়পরতার সহিত এই গুরুতর কার্য্য সম্পন্ন করা হয় যে, ডিগবি সাহেব ইহার জন্য লোকের নিকট চিরস্থায়ী যশঃ লাভ করিয়া গিয়াছেন। যদি তাহার দেওয়ান ধৰ্ম্মজ্ঞাৰশূন্ত উৎকোচগ্রাহী লোক হইতেন, তাহ হইলে উক্ত কার্য্যে এ প্রকার সুফললাভের কখনই সস্তাবনা ছিল না। দ্যায়পরায়ণ দেওয়ান না থাকিলে ডিগবি সাহেব কখনই সুবিচার ও অপক্ষপাতিতার জন্য প্রশংসা লাভ করিতে পারিতেন না । রামমোহন রায় জমিদারী হিসাবপত্র বুঝিতে এবং ভূমি জরিপ করিতে বিশেষ সক্ষম ছিলেন ; সুতরাং তিনি ভূমির হায্য রাজস্ব সুন্দররাপে নিৰ্দ্ধারণ করিতে পারিতেন। বিশেষতঃ তিনি ধূৰ্ত্ত ও অন্যায়পরায়ণ আমীন ও আম্লাদিগের মিথ্যা হিসাবপত্র সহজে ধরিয়া দিতে পারিতেন বলিয়৷ ডিগবি সাহেব অনেক ভ্রম হইতে রক্ষা পাইয়াছিলেন। এতদ্ভিন্ন তিনি ভূমির গুণাগুণ ও তাহার প্রকৃত অধিকারী নির্ণয় সম্বন্ধে যে সকল পরামর্শ দিয়াছিলেন, তাহাতে তিনি ডিগবি সাহেবের এতদূর প্রিয়পাত্র হন যে, যেখানে তিনি কৰ্ম্মোপলক্ষে চলিয়া গিয়াছেন, রামমোহন * রায়কে সঙ্গে করিয়া লইয়া গিয়াছেন। কেবল ইহা নহে। জিলার ভূম্যধিকারিগণ র্তাহার প্রতি এতদূর কৃতজ্ঞ ছিলেন যে, 8