পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কলিকাতা বাস। (సి অনুবাদ সহিত প্রকাশ করেন। ইহারও প্রথমে একটী ক্ষুদ্র ভূমিকা আছে। তৎপরে মুণ্ডক উপনিষৎ প্রকাশ হয়। ইহার মূল ও ভাষা পৃথক্ দুইখানি গ্রন্থের দ্যায় ছিল । ১২২৪ সালের ২১এ আশ্বিন বাঙ্গালা অর্থ সহিত মাণ্ডুকোপনিষৎ প্রকাশিত হয়। উহার প্রথমে একটা সুদীর্ঘ ভূমিকায় ব্রহ্মোপাসনার আবশুকতা বিষয়ে শাস্ত্রীয় প্রমাণ সম্বলিত - বিচার রহিয়াছে। তৎপরে অর্থ সহিত মূল উপনিষৎ এরং শেষভাগে ভাষ্যোক্ত সমাধান বা সিদ্ধান্ত সকল বিবৃত হইয়াছে । হিন্দুসমাজে আন্দোলনের প্রবলতা। এই সকল এবং অন্যান্য অনেক গ্রন্থ প্রকাশ হওয়াতে হিন্দুসমাজে আন্দোলন যার পর নাই প্রবল হইয়া উঠিল । খে বেদশাস্ত্র ভূদেব ব্রাহ্মণ ভিন্ন অপর কোন মমুষ্যের স্পর্শ করিবার অধিকার ছিল না, রামমোহন রায় তাহ মুদ্রিত করিয়া স্নেচ্ছের হস্তে পর্যন্ত সমর্পণ করিলেন। যে ওঁ শব্দ কোন পূদ্রে উচ্চারণ করিলে তাহার রসনা ছেদন করিয়া দেওয়া উচিত, রামমোহন রায় তাহাই আচণ্ডাল সকলের মুখে তুলিয়া দিতে চেষ্টা করিলেন। এতদূর যে করিতে পারে সে কোথায় গিয়া দান্ত হইবে কে জানে ? আস্থাবান পৌত্তলিকেরা যার পর নাই শঙ্কিত হইলেন। ঘোর কলি উপস্থিত । ভট্টাচাৰ্য মহাশরদিগের ক্রোধের পরিসীমা থাকিল না। বিবাহ ও শ্রাদ্ধের সভায়, নৈয়ায়িক, পৌরাণিক, স্বার্ত সকলেই নাসারন্ধে, নস্ত