পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৭২ মহামা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। লোলুপ হইয়া করিলে নরকে যায় ; যাহাতে চিত্তের ভ্রম হয়, এমত পান করিলে সিদ্ধি হয় না। কুলধৰ্ম্মের গোপন ও পশুর বেশধারণ এবং পশুর অন্নভোজন, প্রাণ সঙ্কটে জানিবে। অতএব আপন আপন উপাসনায়ুসারে সংস্কৃত ও পরিমিত মদ্যপান করিলে হিন্দুর শাস্ত্র র্যাহারা মানেন, র্তাহার শাসন করিতে প্রবর্ত হইবেন না। যদিস্যাৎ ধৰ্ম্মসংস্থাপনাকাজী স্বীয় মৎসরতার জালাতে যবন শাস্ত্রের কিম্বা চৈতন্যমঙ্গলাদি পয়ারের অবলম্বন করেন, যাহাতে কোন মতে মদিরাপানের বিধি নাই, তবে শাসনের ক্ষমতা হইলে বৈধ মদ্যপানে দোষ কহিয়া শাসন করিতে পারগ হইবেন। কিন্তু র্যাহাদের উপাসনাতে মদ্য ও মাদকদ্রব্য বিন্দু মাত্রও সৰ্ব্বথা নিষিদ্ধ হয়, তাহার। যদি লোকলজ্জা ও ধৰ্ম্মভয় ত্যাগ করিয়া মদ্য কিম্ব সৃদ্ধিদা কি অন্য মাদক দ্রব্য গ্রহণ করেন, তবে ধৰ্ম্মসংস্থাপনাকাঙ্গীর লিখিত বচনের বিষয় তাহারা হইয়া পাতকগ্রস্ত এবং ব্রাহ্মণ্যহীন হইবেন । যবনী কি অন্তজাতি পরদার মাত্র গমনে সৰ্ব্বদা পাতক এবং সে ব্যক্তি দম্য ও চণ্ডাল হইতেও অধম ; কিন্তু তন্ত্রোক্ত শৈববিবাহের দ্বারা বিবাহিত যে স্ত্রী,সেবৈদিক বিবাহের স্ত্রীর ন্যায় অবশ্ব গম্য হয়। বৈদিক বিবাহের স্ত্রী জন্ম হইব মাত্রেই পত্নী হইয়। সঙ্গে স্থিতি করে, এমত নহে। বরঞ্চ দেখিতেছি যাহার সহিত কোন সম্বন্ধ কল্য ছিল না, সেই স্ত্রী যদি ব্ৰহ্মার কথিত মন্ত্রবলে শরীরের অৰ্দ্ধাঙ্গভাগিনী অদ্য হয়, তবে মহাদেবের প্রোক্ত মন্ত্রের দ্বারা গৃহীত যে স্ত্রী, সে পত্নীরূপে গ্রাহ্য কেন না হয় ? শিবোজ শাস্ত্রের অমান্ত যাহার করেন, সকল শাস্ত্রকে এককালে