পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৭৮ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত । ব্রাহ্মণের প্রতিদিন যে গায়ত্রী জপ করেন, তাহাতে অজ্ঞাতরূপে পরব্রহ্মেরই উপাসনা করা হয়, গায়ত্রীর অর্থ ব্যাখ্যা করিয়া উক্ত পুস্তকে ইহাই প্রতিপন্ন করা হইয়াছে। 'ਸ਼੍ਰੋਂ | এই পুস্তকে “অবতরণিকা" নামে একটা ভূমিকা আছে। ইহাতে বারটা প্রশ্ন ও তাহার উত্তর প্রদত্ত হইয়াছে। কিরূপে ব্রহ্মোপাসনা করিতে হয়, অন্যান্ত নিকৃষ্ট উপাসনাকে দ্বেষ করা উচিত নয়, শাস্ত্রানুসারে আহার ব্যবহার করা উচিত, শাস্ত্রীয় প্রমাণ সহকারে ইহাতে এই সকল বিষয় লিখিত হইয়াছে। পুস্তকখানি ১৭৫১ শকে মুদ্রিত হইয়াছিল। “প্রার্থনা-পত্ৰ” । এই পুস্তকে স্বজাতীয় বিজাতীয় সকল ধৰ্ম্মসম্প্রদায়ের প্রতি উদার ভ্রাতৃভাব প্রকাশ করা হইয়াছে। “আত্মানাতুবিবেক” । এই গ্ৰন্থখানি ভ্রমংশঙ্করাচাৰ্য্য প্রণীত। রামমোহন রায় বাঙ্গালা অনুবাদ সমেত মূলগ্রন্থ প্রকাশ করেন। ইহাতে বৈদাস্তিক মত সকল জানিতে পারা যায়। “ব্রহ্মোপাসনা” । এই পুস্তকে ব্রহ্মোপাসনার একট পদ্ধতি আছে। উক্ত পদ্ধতি দেখিয়া কেহ কেহ মনে করিতে পারেন যে, রামমোহন রায়ের সময়ে উহা ব্রাহ্মসমাজে ব্যবহৃত হইত। কিন্তু বাস্তবিক