পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৮৬ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। খৃষ্ট্রের উপদেশসংগ্রহ প্রকাশ । এই সময়ে তিনি বাইবেল হইতে খৃষ্টর উপদেশ সংকলন পূৰ্ব্বক (Precepts of Jesus, Guide to peace and happiness) অর্থাৎ খৃষ্টের উপদেশ, মুখ ও শাস্তি পথের নেতা, এই নাম দিয়া ১৮১৯ খৃষ্টাব্দে একখানি পুস্তক প্রচার করিলেন। রাজা রামমোহন রায়ের নিকট, সত্যশিক্ষা সম্বন্ধে, স্বদেশীয় কি বিদে শীয়, স্বজাতীয় কি বিজাতীয়ের বিচার ছিল না। র্তাহার প্রশস্ত হৃদয় যেখানে সত্য পাইত, সেখান হইতেই তাহা শ্রদ্ধার সহিত গ্রহণ করিত। তিনি হিন্দুশাস্ত্রসিন্ধু মন্থন পূৰ্ব্বক যেরূপ অমূল্য রত্ন উদ্ধার করিয়াছিলেন, সেইরূপ মুসলমানশাস্ত্র বিলোড়ন করিয়া সত্যসংগ্রহেও ক্রটি করেন নাই ; আবার সেই উদার ভাব-প্রণোদিত হইয়াই তিনি স্বদেশীয় ভ্রাতৃগণের হিতের জন্য খৃষ্ট্রের উপদেশ প্রকাশ করিলেন। আমরা শুনিয়াছি উহার একখানি বাঙ্গাল অনুবাদও প্রকাশ হইয়া ছিল। ইংরেজী পুস্তকের ভূমিকাতে রামমোহন রায় বলিয়া ছেন যে, “যে পরমেশ্বর জাতি, পদমৰ্য্যাদা ও অবস্থানিৰ্ব্বিশেষে সমুদায় জীবকে সমভাবে পরিবর্তন, হতাশ্বাস, দুঃখ ও মৃত্যুর অধীন করিয়াছেন; এবং যিনি প্রকৃতির উপর অজস্র করুণা বর্ষণ করিয়া তাহাতে সকলকে সমভাগী করিয়াছেন; ধৰ্ম্ম ও নীতি সম্বন্ধীয় এই সকল উপদেশ লোকের মনকে সেই পরমেশ্বর সম্বন্ধীয় উচ্চ ও উদার ভাবে পূর্ণ করিবার সম্ভাবনা; এবং পরমেশ্বরের প্রতি, জনসমাজের প্রতি এবং আপনার প্রতি মমুষ্যের কৰ্ত্তব্য সকল প্রতিপালন পক্ষে উহা এ প্রকার