পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কলিকাতা বাস । bra উপযোগী যে আমি ইহা বর্তমান আকারে প্রচারদ্বারা সৰ্ব্বোত্তম ফললাভের আশা করি।” মার্সম্যানূ সাহেবের সহিত বিচার। খৃষ্টের উপদেশসংগ্ৰহ প্রকাশ করাতে রামমোহন রায়ের উদার ভাব প্রায় কেহই হৃদয়ঙ্গম করিতে পারিল না। তাহার কুসংস্কারাচ্ছন্ন স্বদেশবাসীগণের ত কথাই নাই। খুষ্টধৰ্ম্মাবলম্বীরাও সন্তুষ্ট হওয়া দূরে থাকুক, অনেকে বিরক্ত হইলেন। ফ্লুেগু অব ইণ্ডিয়া সম্পাদক, ঐরামপুরের সুপণ্ডিত মার্সম্যান সাহেব র্তাহার পত্রে উক্ত গ্রন্থের নিন্দাবাদ করিয়া প্রবন্ধ লিখিলেন। তাহার প্রতিবাদের কারণ এই যে, খৃষ্টের ঈশ্বরত্ব, র্তাহার অলৌকিক ক্রিয়া ও র্তাহার রক্তে পাপীর পরিত্রাণ ইত্যাদি মতপ্রতিপোষক বাইবেলের বাক্য সকল উহাতে স্থান পায় নাই। উপদেশসংগ্ৰহ পুস্তকে সংগ্ৰহকারের নাম ছিল না ; কিন্তু সাধারণতঃ লোকের নিকট নাম অবিদিত ছিল না। মার্সম্যান্‌ সাহেবের সমালোচনার উত্তরে রামমোহন রায় সত্যের বন্ধু (Afriend to truth) Thi si##ì (An appeal to the Christian Public) নামে একখানি পুস্তক প্রকাশ করিলেন। উহাতে প্রদর্শন করিলেন যে, ঈশ্বরের ত্রিত্ব, খৃষ্টের ঈশ্বরত্ব ও খৃষ্টের রক্তে পাপের প্রায়শ্চিত্ত ইত্যাদি মত বাইবেল গ্রন্থে প্রাপ্ত হওয়া যায় না। মিসনরীগণ বাইবেলের প্রকৃত তাৎপৰ্য্য নী বুঝিতে পারিয়াই ঐ প্রকার বিশ্বাস করিতেছেন।