পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৯০ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। হইতে পারে না । সে সময়ে এক জন সন্ত্রান্ত বংশোদ্ভব ব্যক্তির নামে উক্ত পুস্তক প্রকাশ হওয়াতে বিশেষ উপকার झट्टेग्नांझेिश। হিন্দুশাস্ত্র বিষয়ে জনৈক পাদ্রি সাহেবের সহিত বিচার— ব্রাহ্মনিক্যাল ম্যাগাজিন প্রকাশ । শ্রীরামপুরের জনৈক খৃষ্টয়ান পারি,বেদান্ত, ন্যায়, মীমাংস, পাতঞ্জল, সাস্থ্য, পুরাণ, তন্ত্র প্রভৃতি শাস্ত্র এবং যোনিম্ৰমণ, জন্মান্তরীনফলভোগ প্রভৃতি মতের বিরুদ্ধে সমাচার চন্দ্রিকা পত্রে, ১৮২১ খৃষ্টাব্দের ১৪ই জুলাই, একখানি পত্র প্রকাশ করেন। রামমোহন রায় তাহার প্রচারিত ব্রাহ্মণসেবধি নামক পত্রিকায় তাহার উত্তর দিয়াছিলেন। উহাতে খৃষ্টধর্মের বিরুদ্ধে কতকৃগুলি অখণ্ডনীয় যুক্তি ছিল। উহাতে রচয়িতার জাতীয় ভাব ও জাতীয় শাস্ত্রের প্রতি বিশেষ অনুরাগ দৃষ্ট হয়। “ঐশিবপ্রসাদ শৰ্ম্ম৷” এই কল্পিত নামে পত্রিক প্রচারিত হইত ; বাস্তবিক রামমোহন রায়ই উহার প্রকৃত লেখক। উহা ব্রাহ্মনিক্যাল ম্যাগাজিন্‌ (Brahmanical Magazine) ato, to oth বাঙ্গাল ও অপর পৃষ্ঠায় তাহার ইংরেজী অনুবাদ সহিত প্রকাশিত হইত। সৰ্ব্বশুদ্ধ দ্বাদশ সংখ্যা পর্য্যন্ত প্রকাশ হইয়াছিল। কিন্তু দুঃখের বিষয় যে, রামমোহন রায়ের বর্তমান পুস্তকপ্রকাশক ,তিনখানির অধিক সংগ্ৰহ করিতে পারেন নাই। পাদরি ও শিষ্যসংবাদ। আমরা রামমোহন রায়ের খৃষ্টধৰ্ম্ম বিষয়ক আর একখানি