পাতা:মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত.djvu/৯৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৪ মহাত্মা রাজা রামমোহন রায়ের জীবনচরিত। যায়, রামমোহন রায় প্রচলিত ধর্মের বিরুদ্ধে দণ্ডায়মান হওয়াতেই মহারাজা অত্যন্ত ক্রুদ্ধ হইয় তাহাকে জব্দ করিবার মানসে এই মোকদম উপস্থিত করেন। রামমোহন রায় যেরূপে আত্মপক্ষ সমর্থন করিয়া জয়লাভ করেন, তাহ পূৰ্ব্বে বলা হইয়াছে { 来 অনেক দিন হইতে রামমোহন রায়ের মনে এই প্রবল ইচ্ছা ছিল যে, ব্রহ্মোপাসনা ও ব্রহ্মজ্ঞান প্রচার জন্য বিধিপূৰ্ব্বক একটু সমাজ সংস্থাপন করেন ; কিন্তু উপরিউক্ত মোকদম সকল এবং তজ্জনিত অন্যান্ত কষ্টে পড়িয়া তিনি মনোরথ পূর্ণ করিতে পারেন নাই। যাহা হউক, শিষ্যদিগকে ধৰ্ম্মশিক্ষা দিতে ও মধ্যে মধ্যে প্রকাগু ধৰ্ম্মবিচারে প্রবৃত্ত হইতে তিনি ক্ষান্ত হন নাই। টাইটলর সাহেবের সহিত তর্কযুদ্ধ। এই সময়ে অর্থাৎ ১৮২৩ খ্ৰীষ্টাব্দে একটি অতি আমোদজনক তর্কযুদ্ধ উপস্থিত হয়। এই যুদ্ধের একদিকে হিন্দু কালেজ ও মেডিকেল স্কুলের অধ্যক্ষ ডাক্তার টাইটলর সাহেবের ভ্রাতা (হিন্দু কলেজের জনৈক শিক্ষক) ও শ্রীরামপুরের মিলনরিগণ, এবং অপরদিকে রামমোহন রায়। সুপ্রসিদ্ধ “হরকরা ও'ফুেও অব ইণ্ডিয়া”পত্র যুদ্ধক্ষেত্র হইয়াছিল। উভয় পক্ষই উক্ত দুই পত্রে পরস্পরের প্রতি তর্ক-অস্ত্র সকল নিক্ষেপ করিতেন। হরকরা-পত্রে টাইটলর সাহেব, প্রথমতঃ রামমোহন রায়কে

  • ২৪ পৃষ্ঠা দেখ।