পাতা:মহারাষ্ট্র-নৃপেন্দ্রকুমার বসু.djvu/১১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহারাষ্ট্র * দক্ষিণ কঙ্কনের বিখ্যাত বন্দর প্লাজাপুর দখল করিলেন। তার পর শৃঙ্গারপুরের অর্থস্বাধীন মারাঠীদার দুলেকে প্রকাগু যুদ্ধে হত্যা করিয়া, তাছায় ক্ষুদ্র রাজ্যটি গ্রাস করিলেন। ইহাতে বহু হিন্দুর মনে আঘাত লাগিল। শিবান্ধীও ক্ষতিও হইলেন। ইতঃপূর্কে জাওলী দখল করিতে গিয়াও বাধ্য হইয় তাহাকে বহু হিন্দুর প্রাণসংহার করিতে হইয়াছিল। অথচ হিদুর স্বাধীনতার জন্তই ঠাহার এই সকল যুদ্ধ-বিগ্রহ। এই সময় তিনি প্রতাপগড়ে ভবানীদেবীর এক প্রকাও মন্দির প্রতিষ্ঠা করিয়া, মহাপুরুষ রামদাগ স্বামীর শিষ্য। গ্রহণ कृत्वन । গুরু রামাল নিজের গৈরিক বস্ত্র হতে একটা টুরি ছিড়িয়া লইয়। তাছাই শিবাল্পীরীক্ষা-দণ্ডের উপর লাগাইয়৷ দেন। পরবত্ত্বিকালে শিখাষ্ট্ৰীয় সমস্তু জয়-পতাকা গেরুয়া রঙে ররিত ধাৰিত। গুরু ধায় বীর শিষ্যকে স্বাধীন হিন্দু রাজ্য স্থাপনে সমর্থ হুইবে বলিয়া আশীৰ্ব্বাদ করেন । গুরুদক্ষিণ স্বৰূপ শিবাজী বিস্তৃত্ব জারীর দান করিবার ইচ্ছা প্রকাশ করিলে, রামাস স্বামী প্রদীপ্ত চক্ষে বলেন, “বংস, মহারাষ্ট্রের যে ষে স্থান এখনও মুসলমান-কবলে আছে, ডুবি সেইগুলি আমায় দান ক'রে Ras বর্ধশেষে মুলতান যুদ্ধাভিযান পুনরায় আরম্ভ করিলেন। শিবাজীও রীতিমত গ্রস্তুত ছিলেন। স্বজাতিদ্রোর্থী বাঙ্গী ঘোড় ক্ষেত্ত্বেও মুলতানের মুখে ছিলেন। বিশালগড়ের