পাতা:মহারাষ্ট্র-নৃপেন্দ্রকুমার বসু.djvu/১৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১$3 শিবাঞ্জার বংশধরগণ ও মুরক্ষিত করা হইল। বোম্বাইয়ের ইংরাজরা এই ব্যাপারে একটু ভীত হয় পড়িলেন। ১৬১৯ খৃষ্টাব্দে রাজারাম কয়েকমি দুৰ্দ্ধ সেনাপতি লইয়া উত্তর কঙ্কনের বহুস্থান জয় করিয়া লইলেন; খাদেশ, বেরার, বাগনান ও গঙ্গাখুরি আক্রমণ করিয়া চৌধ ও সর্দেশমূী কর স্থাপন করিলেন। যে সকল মুঘল ফৌজদার প্রতিরোধের চেষ্ট। করিঙ্গেম, ডাহাদিগকে নির্দয়ভাবে কাটিয়া ফেলা হইল। যাহারা পুরা বা আংশিক ভাবেও চৌধ দিতে পারিল না, তাহার किषिरनगै १५ निशिम्ला लि । u३ शढ़त ¢;ो५ कप्लांट्स-१शब्द আদায় করিবার জন্তু, রাঙ্গারাম সৰ্ব্বপ্রথম ঐ সকল দেশে এক একটা ঘাটি প্রতিষ্ঠিত করিয়,এক একজন ওস্তান সেনাপতির অধীনে এক দল করিয়া বীর সৈন্তু রাখিয়া অধিলেন। এদিকে ঔরঙ্গজেব, পুত্র আঙ্গিম যাহকে লইয়া সাতারী-দুর্গ আক্রমণ করিলেন ( ১৭•• খৃঃ অঃ)। কয়েক মাস অবরোধ ও যুদ্ধের পরে মারাঠা সৈন্তর, দুর্গ হইতে বাহির হইয়া, মুঘল ব্যুৎ ভেদ করিয়া চলিয়া গেল ; শূন্ত দুর্গ ভ্রাটের হস্তগত হইল। এই সময় রাজারাম মরণাপন্ন হইয়। উত্তরাপথ-অভিযান হইতে নিংহাড়ে ফিরিয়া আমিলেন। রাজারামের স্বত্যুর পর তাহার দশ বৎসরের ছেলে তুতীয় শিবাজী মহারাষ্ট্রের গীতে বসিলেন ; তাহার বীরমাতা তারাবাঈ মোহিতে অভিভাবক হইলেন । কোন পরাজয়ই মহারাট্টদের উৎসাহ মান করিতে পারিল