পাতা:মহারাষ্ট্র-নৃপেন্দ্রকুমার বসু.djvu/৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


tు वृषलवृcनं श्वशङ्कहे গেল। হিন্দুর প্রাসা-মন্দির-শোভিত অপূর্ব শোভাসম্পদশালী রাজধানী স্মশানে পরিণত হইল। ইহার পর আহমেদনগর রাজ্যে পূর্ব হইতে যে ধারার বিী চলিছেছিল, গুহা পুনরায় পূর্ণোদ্যমে স্বল্প হইয় গেল। একে বিজাপুর রাঙ্গ জলি জালি শাহ ১৫৮৪ খৃষ্টাব্দে নিহত হইলে, উহার বিধবা মহিী চাবিবি শিশুপুত্র ইরামের অভিাবিক স্বরূপ রাজ্য পরিচালন করিতে লাগিলেন। কিন্তু লোকের অধীনতা কেহই স্বীকার কাঁৱতে চলি না; দরবারে দলাদলির খোট ভীষণভাবে পাকাইয়া উঠিল । দেশীয় মুসলমান এবং বিদেশী-বিশেষতঃ পারসী ও হাবী মুসলমানদের ভিতর বহুকাল হুইড়েই যে রেষারেৰি চলিড়েছিল, তাই ইব্রাহিমের নবালকত্বের সুযোগে দাবীথির মত স্বলিয়া উঠিল। প্লাবিধ যেমন তীয় বুদ্ধিমতী, তেমনি আত্মনির্ভরশীলা ছিলেন। তিনি চিরশতার সহিত এই সকল দলাদলি সঙ্কীর্ণ সীমার মধ্যে আবদ্ধ রাখলেন। ১৫৮৪ খৃষ্টালে ইরামি সাবালক হইলেন, চাৰিবি পিত্ৰালয় আহমেদনগয়ে চলিয়া গেলেন। আহমেদনগরেও দলাদলির অভাব ছিল না, সে কথা পূর্বেই বলিয়াছি। হিন্দুমন্ত্রীয় দলে ক্রমশঃদেশীয় মুসলমানগণ (অর্থাৎ যে সকল হিন্দু দুই চার পুরুষের মধ্যে মুসলমানৰ্ম্মে দীক্ষিত হইয়াছে) আলিয়া দলপুষ্ট করিল। ওদিকে দ্বাধী দলের হাতে মুলতানগণ উঠতে বলতে লাগিলেন। দুই চারিজন মহারাষ্ট্র