পাতা:মানসী - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১১০
বধূ


‘কিছুতে নাহি তােষ,   এ তাে বিষম দোষ,
গ্রাম্যবালিকার স্বভাব ও যে।
স্বজন প্রতিবেশী   এত যে মেশামেশি,
ও কেন কোণে বসে নয়ন বােজে?’

কেহ বা দেখে মুখ, কেহ বা দেহ—
কেহ বা ভালাে বলে, বলে না কেহ।
ফুলের মালাগাছি  বিকাতে আসিয়াছি—
পরখ করে সবে, করে না স্নেহ।

সবার মাঝে আমি ফিরি একেলা।
কেমন করে কাটে সারাটা বেলা!
ইঁটের ’পরে ইঁট,   মাঝে মানুষ-কীট ;
নাইকো ভালােবাসা, নাইকো খেলা।

কোথায় আছ তুমি কোথায় মা গাে,
কেমনে ভুলে তুই আছিস হাঁ গো!
উঠিলে নবশশী   ছাদের ’পরে বসি
আর কি উপকথা বলিবি না গাে!
হৃদয়বেদনায়    শূন্য বিছানায়
বুঝি, মা, আঁখিজলে রজনী জাগাে—
কুসুম তুলি লয়ে   প্রভাতে শিবালয়ে
প্রবাসী তনয়ার কুশল মাগাে।