পাতা:মানিক গ্রন্থাবলী (প্রথম খণ্ড).pdf/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ow 6ठीगांद्म क्षों डॉलेि । হাসি খুলী হইয়া বলে, সত্যি ? কিন্তু আমি যখন কাছে থাকিব না। তখন আমার কথা ভেবে- এখন থেকে কেন ? মা তো কদিন থেকে লিখছেন যাবার জন্য, এসেছিও তো অনেকদিন হল, মাসখানেকের জন্যে দাও না পঠিয়ে আমাকে 지 전FC, ? প্রমথ অস্বাভাবিক ব্যাকুলতায় সঙ্গে বলে, না না, এখন sBDD BDLD ELES DB D SS DD SBDBBDD BDD এখন একদিনও থাকতে পারব না | আগে প্ৰথমে নাকে লাগিত ওমিলনাইন তেলের গন্ধ তারপর আসিত অন্য উপসর্গ। আজকাল প্ৰথমে প্রমথ সুনীতির কথা ভাবিয়া মনটা বিতৃষ্ণায় ভরিয়া তোলে তারপর আসে ওমিলনাইনের সুবাস ও পরবত্তী কষ্টগুলি। ব্যাপারটা প্রমথকে বেশীরকম দুশ্চিন্তায় ফেলিয়া দিয়াছে এইজন্য যে এই অস্বাভাবিক আক্রমণ ঘটিবার সময় ছাড়া বাকী প্ৰায় সব সময়েই সে জীবনকে পরিপূর্ণভাবে উপভোগ করিতে করিতে মহানন্দে বঁচিয়া থাকে। আগে সে তার বিকারকে গ্ৰাহাঁই করিত না, এখন এরকম কেন হয় বুঝিবার চেষ্টা করে, এরকম হওয়া বন্ধ করাঅ কোন উপায় আছে কি না বসিয়া বসিয়া তাই ভাবে। তবে, মোটামুটি তাকে সুখীই বলা যায়। পাঁচবছরের বেশী সময়ের ব্যবধান ও কে জানে কতখানি দূরত্ব পার হইয়া সুনীতির মাথায় ওমিলনাইন তেলের গন্ধ তার নাক ও মনের সঙ্গে যে রসিকতা করিতে আসে, সেটা অল্প সময়ের জন্যই। কিছুক্ষণ একটা দুর্বোধ্য যন্ত্রণা ভোগ করিবার পরেই সে সুস্থ ও স্বাভাবিক হইয়া উঠিতে পারে। তখন আর বুঝিবার উপায়ও থাকে না যে তার শান্ত হাসিখুলী মুখের পিছন দিকে, চুলেঢাকা খুলির শক্ত হাড়ের তলে যে নরম মগজটা আছে তার ময়-চেতনার অংশটুকুতে বাস করে এমন খাপছাড়া একটা বিকার । হাসিরাশিকে প্ৰমথের এতই ভাল লাগিয়াছে যে, কয়েকদিনের জন্যও তাকে ছাড়িয়া থাকিবার কথা ভাবিলে সত্যসত্যই তার কষ্ট হয় । এ রকম সরল,স্নেহময়ী, বুদ্ধিমতী ও সহজাত সু-ভাবাপন্ন স্ত্রী পাওয়ার জন্য নিজেকে সে ভাগ্যবান মনে করে। ৰিবাহ করার আগে যা ছিল শুধু অসম্ভব কল্পনা, যে সুখ ও শাস্তির স্বরূপ সে প্রায় ভুলিয়া যাইতে বসিয়াছিল, জীবনের নিরপেক্ষ সদয় দেবতার কল্যাণে আজ সে প্ৰায় সবই ফিরিয়া পাইয়াছে। শুধু ওমিলনাইনের অত্যাচার সহ্য করিবার দুর্ভাগ্যটা যদি তার না হইত। আদর্শ জীবন হইত। তার, কোন দিকে এতটুকু খুঁত থাকিত না । এমনিভাবে দিন কাটিতে কাটিতে পূজার ছুটি আসিয়া পড়িল, আত্মীয়স্বজনের মধ্যে ছুটিটা কাটাইবার জন্য প্রমথ সন্ত্রীক আসিল কলিকাতায়। কলিকাতায় পৌছিবার দিনই সন্ধ্যার পর তার রহস্যময় মোহের রাজ্য হইতে ওমিলনাইনের গন্ধ ভাসিয়া আসিয়া তাকে ভয়ানক উতলা করিয়া দিল । यांत्रिक-थांबौ পরদিন সকালে সে হাসিকে বলিল, তুমি মাথায় যে তেল মাখে। ওটার গন্ধ ভারি বিশ্ৰী । আমি একটা আশ্চৰ্য্য তেল এনে দিলে মাখিবে ? আশ্চৰ্য্য তেল, আবার কি জিনিষ গো, এ্যা ? কয়েকটা ভিন্ন ভিন্ন তেল মিশিয়ে আমি নিজেই তৈরী করে দেব, মাখবে তো ? ওমা, কেন মাখিব না ? চুল উঠে গেলে কিন্তু মজা দেখাবো তোমায় । সে দায়িত্ব তোমার ! প্রমথ বলিল, উঠে যাবে ? চুলের ভারে হাটতেই পারবে না দেখো । কি নাম জান তেলটার ? ওমিলমাইন.। কিছুকাল হইতে এই কথাটা প্রমথ ভাবিতেছিল । অস্তিত্বহীন ওমিলনাইনের যদি তাকে এরকম ভাবে বিরক্ত করে, নিজের চারিদিকে আসল ওমিলনইনের গন্ধ ছড়াইয়া রাখিয়া ক্রমেক্ৰমে গন্ধটা অভ্যন্ত করিয়া আনিলে হয়তো আর সে বিচলিত হইবে না ? সব সময় যে গন্ধ সে অনুভব করিষে সে গন্ধের কাল্পনিক আবির্ভাব হয়তো সে টেরও পাইবে না ? প্রথমটা হয়তো সৰ্ব্বদা এই গন্ধ শুকিতে তার খুবই খারাপ লাগিবে, হয়তো অল্প সময়ের ব্যবধানে বারংবার ভার মনের বিকার জাগিয়া উঠিবে, মাথা-ঘোরা গা বমি বমি করার আর বিরাম থাকিবে না । তবু, আসল ওমিলনাইনকে অভ্যাস করিয়া শেষ পৰ্য্যন্ত নকল ওমিন্সাইনকে যদি জয় করিতে পারা যায়, একবার সে চেষ্টা করিয়া দেখা ভাল । একবার সুনীতিকে প্রমথ ওমিলনাইনের উপকরণগুলি উপহার দিয়াছিল। শুধু এইজন্য ন'ট বিভিন্ন তেলের নাম LDDS KDS SSDL DD KDB BDDK DD S SDD প্ৰমথের জীবনে ওমিলনাইন কেৰল একটা মিশ্ৰিত কেশতৈল নয়, সুনীতির সঙ্গে বিচ্ছেদের পর সুনীতির চেয়ে এই তেলটার কথাই বোধ হয় তাকে ভাবিতে হইয়াছে বেশী, এখনো না ভাবিলে চলে না । ন’টি তেলের প্ৰত্যেকটির নাম আজও তার নিজের নামের চেয়েও স্পষ্টভাবে মনে আছে। সেইবেলাই ওমিলনাইনের উপকরণ আসিল । ছোটবড় দেশী-বিলাতী ন’টি বিভিন্ন কেশতৈলের শিশি। তাকে তেল মাখানোর জন্য স্বামীর আয়োজন ও আগ্ৰহ দুটারই পরিমাণ দেখিয়া হাসিরাশি হাসিতে লাগিল । এতগুলি তেল মাখিব ? দাড়াও না, এমন তেল তৈরী করে দেৰ, গন্ধে সবাই মূৰ্ছা যাবে। বিকেলে এই তেল দিয়ে চুল বেঁধে, কেমন ? দুপুরে একটা কাচের পাত্রে তেলগুলি মেশানো হইল। তখন প্রমথ আশ্চৰ্য্য হইয়া লক্ষ্য করিয়া দেখিল তায় এতদিনকার কাল্পনিক ওমিলনাইনের সঙ্গে এই আসল ওমিলনাইনের গন্ধের কিছু পার্থক্য আছে। যতক্ষণ এই পার্থক্যটুকু খেয়াল করিয়া সে ৰিস্মিত হইয়া মহিল