পাতা:মানিক গ্রন্থাবলী (প্রথম খণ্ড).pdf/১৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ܗܛ ܢ নিজের সম্বন্ধে নিজে সে কখনো এভাবে চিন্তা করে নাই ৷ BggB S S SDDS SD S DDBBDYSDB DBD YBLBD আপেক্ষিকতার মাপকাঠিতে বিচার করিয়া ধুঝিতে চাহিয়াছে, ব্যাপারখানা কি । নিজের সম্বন্ধে যত কেন জাগিয়াছে, তার সবগুলির জবাব খুজিয়াছে যে অভিধানে শুধু সাধারণ চলতি মানে পাওয়া যায়। মুদীর হিসাবে যেন সুখ-দুঃখের হিসাব কষিয়াছে। ভূমিকম্পের কারণ খুজিয়াছে মাটির উপরে। আরও যে অনেক উষ্ণ গহন অন্তর আছে মাটির নীচে এ যেন সে ভুলিয়াই গিয়াছিল। আজ সরসী মনে পড়াইয়া দিয়াছে। গভীর কৃতজ্ঞতায় অনেকদিন পরে রাজকুমারের হৃদয়গ্ৰন্থিতে স্রাব হয় চোখের জলের মত নোনতা সুস্বাদু রসের, শুকনো মন একটু ভিজিয়া ওঠে। BB BDDBBDS eBB DDD BBS BDBSD SDBB KDDuD DD ওপরে যাবে ? চলে । উপরে দু'টি পাশাপাশি ঘর সরসীর, একটিতে সে বসে, অপরটিতে শোয়। মাঝখানে একটি দরজা আছে, ঘর দু'টির ব্যবধান বজায় রাখিতে দরজাটি সে অধিকাংশ সময় বন্ধ করিয়া রাখে, সামনের বারান্দা ঘুরিয়া যাতায়াত করে এঘর হইতে ওঘরে । বসিবার ঘরে রাজকুমারকে বসাইয়া সে বাহিরে চলিয়া গেল। একপাশে একটি চারকোণা টেবিলে সরসী লেখাপড়া করে, তার সভাসমিতির কাগজপত্রেই টেবিলের BDBD DBBDB DBBDSS BD BgDB BD DDBD DDD বই, প্ৰত্যেকটি বই রাজকুমারের পড়া। নিৰ্বিচারে ভালমন্দ সব বই পড়ার সময় সরসীর হয় না। রাজকুমারের সঙ্গে তাই তার বন্দোবস্ত আছে, রাজকুমার নিজে পড়িয়া সে সব বই তাকে পড়িতে বলে শুধু সেই বইগুলিই সে পড়ে-তার জ্ঞানবুদ্ধির আয়ত্তের বাহিরের বইগুলি ছাড়া। এঘরে প্রায়ই অনেক মেয়ে জড়ো হয়, সোফা চেয়ারে ঘরটি একটু ঠাসিয়া ফেলিতে হইয়াছে। জানালার কাছে গেরুয়া আস্তরণ ঢাকা একটি ঈজিচেয়ার, সরসী ওখানে বিশ্রাম করে । আন্তরণে মাথার চুলের দাগ পড়িয়াছে টের পাওয়া যায়। সারাদিন ছুটাছুটির পর ওখানে চিৎ হইয়া প্ৰান্ত সরসী না জানি কি ভাবে। দশজনের সঙ্গে সরাসীর কারবার, সর্বদা সে মানুষের সঙ্গে মেলামেশা করে, দু’চারজন সঙ্গিনী সারাদিন তার আছেই। সরাসীকে এই ঘরে এক কল্পনা করিতে গিয়া রাজকুমারের মনে হয় সে যেন নিজেরই এক রহস্যময় ভাবপ্রবণতাকে প্ৰশ্ৰয় দিতেছে । সরসীর ফিরিতে দেরী হইতেছিল। এত রাত্রে তাকে একা বসাইয়া কি করিতেছে সরসী ? আত্মসম্বরণ করিতেছে ? রাজকুমার নিজের কাছেই মাথা নাড়ে। যতই বিচলিত হোক সাষিলাইয়া উঠিতে সরাসীর সময় লাগে না, নির্জনতার মানিক-গ্ৰন্থাবলী প্ৰয়োজন হয় না । নীচে তার যখন কান্না আসিয়াছিল তখনও এক মিনিটের জন্য উঠিয়া গিয়া কঁাদিয়া অথবা কান্না থামাইয়া আসিতে হয় নাই। রাজকুমার মৃদুস্বরে ডাকে, সরসী ? পাশের ঘর হইতে সরসী সাড়া দেয় আসছি। কেমন যেন অস্বাভাবিক মনে হয়। সরসীর গলা । নীচে অত সহজে যে-কান্না সে আটকাইয়াছিল, ও ঘরে গিয়া সত্যই সত্যই তবে কি সেই কান্নাই সে কঁদিতেছে ? রাজকুমার কাঠ হইয়া বসিয়া থাকে। রিণির কাছে তার খাপছাড়া প্ৰস্তাবের বিবরণ শুনিয়া এমন আঘাত লাগিয়াছে সরাসীর মনে ? রিণিকে কথাটা বলার আগে সে শুধু DDDDDS BB BDB DBB BDDB DBD DD gBDS সরাসীর কথা তার মনেও আসে নাই। শেষ পৰ্য্যন্ত আঘাতটা তবে পাইল সরসী ? রাজকুমার ভাবিয়াছিল, সরসী বাহির হইতে ঘরে আসিবে। শোয়ার ঘরের দরজা খোলায় শব্দে সেদিকে চাহিয়া তার চোখের পলক পড়া বন্ধ হইয়া গেল । সরসী আগাইয়া আসিল আরও কয়েক পা। রিণির মত রঙ নেই, আমি কালো। তবু ভাবলাম, তুমি তো রঙ দেখতে চাও না তুমি কঁপিছ সরসী। মনের জোরে কুলোচ্ছে না। কি মনে হচ্ছে জানো ? ছুটে গিয়ে খাটে তোষক গদির নীচে ঢকে পড়ি। কিছু ভাবা আর করার মধ্যে কত তফাৎ ! তখন থেকে पद्मछांद्र कांटछ हैंtलिcम्र वांछि, लूमि ना उाकएल जब्रछा খুলতেই পারতাম না। তুমি বড় সুন্দর সরলী। চুপ। ওসব বলে না। দাম আটকে মরে যাব। মারবে না, শোন । তোমার শরীর এমন সুন্দর বলে তোমার মনটাও সুন্দর । তোমায় এখন আমি প্ৰণাম করতে পারি, জানো ? অনিৰ্বাচনীয় আনন্দে রাজকুমারের চিত্ত ভরিয়া যায়, নিরবসন্ন সক্রিয় শাস্তির মত এক অপূর্ব অনুভূতি জাগে। শক্তি ও সহিষ্ণুতার যেন সীমা নাই। শ্রদ্ধা, মমতা, কৃতজ্ঞতা আর সহানুভূতি মেশানো যে মনোভাব সরাসীর প্ৰতি জাগে, প্রেমের চেয়ে তা বোধ হয় কম জোরালো নয়। সরসী তাকে বোঝে, বিশ্বাস করে। ব্যাখ্যা করিয়া সরাসীকে তার কিছু বুঝাইতে হয় নাই, রিণির কাছে তার বক্তব্যের ভাঙ্গাচোরা বিকৃত বিবরণ শুনিয়া সে যতটুকু বুঝিতে পারিয়াছে তাই মনে করিয়াছে যথেষ্ট। আর জেরা করে নাই, তর্ক তোলে নাই, নিজের হইয়া ওকালতি করার যন্ত্রণা তাকে দেয় নাই, বিনা ভূমিকায় নিজের দেহটি তাকে দেখিতে দিয়াছে। সরসী ছাড়া আর কেউ তা পারিত না।