পাতা:মানিক গ্রন্থাবলী (প্রথম খণ্ড).pdf/১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


丐可动 Sስለ” হ্যামা বলিল, একি করলেন ? হারান ডাক্তার বলিল, শুকনো তোয়ালে থাকলে দাও, না থাকলে শুকনো কাপড়েও চলবে । শ্যামা বিষ্ণুপ্রিয়ার দেওয়া একটি তোয়ালে আনিয়া দিলে জল হইতে তুলিয়া তোয়ালে জড়াইয়া খোকাকে হারান শোয়াইয়া দিল। নাড়ী দেখিয়া চৌকির পাশের দিকে সরিয়া গিয়া ঠেস দিল দেয়ালে ৷ পান। সে আজ আগগোড়া জাবর কাটিতেছিল, এবার বুজিল চোখ। শ্যামা বলিল, আমার কি হবে ডাক্তারবাবু ? হারান রাগ করিয়া বলিল, এই তো, এই তো তোমাদের দোষ । কঁদবার কারণটা কি হল ? ওর আরেকটা বাথ দিতে হবে বলে বসে আছি বাছ, তোমাদের দিয়ে তো কিছু হবার যো নেই,খালি কঁদতে জানে । হারান বুড়া হইয়াছে, তাহাকে ডাক্তারবাবু বলিতে শ্যামার কেমন বাধিতেছিল। রোগীর বাড়িতে ডাক্তারের চেয়ে পর কেহ নাই, সে মানুষ নয়, সে শুধু একটা প্রয়োজন, তিতে ওষুধের মত সে একটা হিতৈষী বন্ধু। হারানকে পর মনে করা কঠিন। তঁহাকে দেখিয়া এতখানি আশ্বাস মেলে, অথচ এমনি সে অভদ্র যে আত্মীয় ভিন্ন তাহাকে আর কিছু মনে করিতে কষ্ট হয়। শ্যামা তাই হঠাৎ বলিল, আপনি একটু শোবেন বাবা ?-- দেয়ালে ঠেস দিয়ে কষ্ট হচ্ছে আপনার । কষ্ট ? হাসিতে গিয়া হারান ডাক্তারের মুখের চামড়া অনভ্যস্ত ব্যায়ামে কুচকাইয়া গেল, এতক্ষণে শ্যামার দিকে সে যেন একটু বিশেষ ভাবে চাহিয়া দেখিল, না মা, কষ্ট নেই, শোক-একেবারে বাড়ি গিয়ে শোব। দুটো পান দিতে পার, বেশ করে দোক্তা দিয়ে ? শ্যামা পান সাজিয়া আনিয়া দিল। এটুকু সে বুঝিতে পরিয়াছিল যে খোকার অবস্থা বিপজ্জনক, নহিলে ডাক্তার মানুষ যাচিয়া বসিয়া থাকিবে কেন ? এত জরের উপর জলে ডুবাইয়া চিকিৎসাও কি মানুষ সহজে করে ? তবু শ্যামা অনেকটা নিশ্চিন্ত হইয়াছে। সে তো ডাক্তারি বিদ্যার পরিচয় রাখে না, সে জানে ডাক্তারকে । জীবনরমণের ভার যে ডাক্তার পান চিবাইতে চিবাইতে লইতে পারে, সেই তো ডাক্তারি-মরণাপন্ন ছেলেকে ফেলিয়া এমন ডাক্তারকে পান সাজিয়া দিতে শ্যামা খুসিই হয়। পান। আর এক খাবলা দোক্তা মুখে দিয়া হারান শীতলের কথা জিজ্ঞাসা করিল। আধা ঘণ্টা পরে খোকার তাপ লইয়া বলিল, জ্বর বাড়েনি। তবু গাটা একবার মুছে দিই, केि दल भी ? না, হারান ডাক্তার গম্ভীর নয়। রোগীর আত্মীয়স্বজনকে লে শুধু গ্ৰাহ করে না, ওর মধ্যে যে তার সঙ্গে ভাবি জমাইতে পারে, বুড়া তার সঙ্গে কথা বড় কম বলে না। বাবা বলিয়া ডাকিয়া শুমা তাঙ্গার মুখ খুলিয়া দিয়াছে, রাজ্যের কথার মধ্যে খোকার যে কত বড় ফঁাড়া কাটিয়াছে, তাও সে শ্যামাকে gDBDB DDD S BDDDS BBDD S BBB SBDD S DO ডাকিলে আর দেখিতে হইত না। জর বাড়িতে বাড়িতে ୯୩<f ୪୩୫ গিয়ে একটা ওষুদ পাঠিয়ে দিচ্চি রাণীর হাতে, পাঁচ ফোটা করে খাইয়ে দিও দুধের সঙ্গে মিশিয়ে চামচেয়,- গরুর দুধ নয় মা, সে ভুল যেন করে বোসো না । আধ ঘণ্টা পর পর তাপ নিয়ে যদি দ্যাখো জর কমছে না, গা भूष्ट् ७ि ।। সন্ধ্যাবেল আপনি আর একবার আসবেন বাবা । হারান দরজার কাছে গিয়া একবার দাড়াইল। বলিল, ভয় পেয়ে না। মা, এবার জর কমতে আরম্ভ করবে। শু্যামা ভাবিল, সাহস দিবার জন্য নয়, হারান হয়ত ভিজিটের টাকার জন্য দাড়াইয়াছে। কত টাকা দিবে, যাহাকে বাবা বলিয়া ডাকিয়াছে, দুটো একটা টাকা কেমন করিয়া হাতে দিবে, শুমা ভাবিয়া পাইতেছিল না, অত্যন্ত সঙ্কোচের সঙ্গে সে বলিল, উনি বাড়ি নেই এলে পাঠিয়েদিও —বলিয়া হারান চলিয়া গেল। স্বয়ং শীতলকে অথবা ভিজিটের টাকা, কি যে সে পাঠাইতে বলিয়া গেল, কিছুই বুঝিতে পারা গেল না। শীতলের ফিরিবার কথা ছিল রাত্রি আটটায়। সে আসিল পরদিন বেলা বারটার সময়। বিষ্ণুপ্রিয়া কার কাছে খবর পাইয়া এবেল শ্যামাকে ভাত পাঠাইয়া দিয়াছিল, শীতল যখন আসিয়া পৌছিল সে তখন অনেক ব্যঞ্জনের মধ্যে শুধু মাছ দিয়া ভাত খাইয়া উঠিয়াছে এবং নিজেকে তাহার মনে হইতেছে রোগমুক্তার মত। শীতল জিজ্ঞাসা করিল, খোকা কেমন ? उठi० उigछ ] কাল গাড়ি ফেল করে বসলাম, এমন ভাবনা হচ্চিল তোমাদের জন্যে । শ্যামার মুখে অনুযোগ নাই, সে গভীর ও রহস্যময়ী। কাল বিপদে পড়িয়া কারে উপর নির্ভর করিষার জন্য সে মরিয়া যাইতেছিল, আজ বিপদ কাটিয়া যাওয়ার পর কিছু আত্মমৰ্যাদার প্রয়োজন হইয়াছে। डिब्ा কয়েক বৎসর কাটিয়াছে। শ্যামা এখন তিনটি সন্তানের জননী। বড়খোকার দু’বছর বয়সের সময় তাহার একটি মেয়ে হইয়াছে, তার তিন বছর পরে আর একটি ছেলে। নামকরণ হইয়াছে তিনজনেরই-বিধানচন্দ্ৰ, বকুলমালা ও বিমানবিহারী। এগুলি EBBDBD DDDS S KD BB BDB DBDDBDB আছে, খোকা, বুকু ও মণি ৷