পাতা:মানিক গ্রন্থাবলী (প্রথম খণ্ড).pdf/২১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


AS8 কইন ধুতি, চকচকে বাণশ করা জুতো। গায়ে থাকবার LBDK BDS Bg BBDS D SBD DDD D লোকের কাছে খাতিরের এবার আর সীমা রইল না। তার। দু'একদিন থাকে, ঘুরে ঘুরে সকলের সঙ্গে আলাপ জমায়, ৰড়ই তাকে মিশুক বলে মনে হয় এবার। ক্ষণে ক্ষণে পাঞ্জাবীর পকেট থেকে উদ্ভট চেহারার একটা কেস বার BDD BDB LBDB Dtz DDD SD BBB S DDD টানো-আগে সে তামাক আর বিড়ি খেত, মাঝে মাঝে পয়সায় দুটোওলা সিগারেট । লালু আর মবুবকেও সিগারেট দেয়। ওদের সঙ্গে এবার তার বড় ভাব হয়েছে। লালুর বয়স এগার বছর, মবুধের বার । সমবয়সী বয়ন্ত লোকের মতোই তারা তাদের মেয়ে সংক্রান্ত ব্যবসার কথা বলে, অশ্লীল হাসিতামাসাগুলি পৰ্যােন্ত राCनद्र ठूझ बझन्छCाद्र मCठा । গজেন বলে, “মদনের বোনটা পিছায় কেন রে ?” লালু বলে, “ডরায়। লালমুখো গোরাদের যদি এরিয়ে দি ” “লালমুখো গোরা কিসের ?” গজেন বলে বেজার হয়ে।-"মোদের বিবি’সাব কি কয় ? মেহের ৰিবিসাব ?” মবুব বলে, “কিয় কি, তোরা পোলাপান, তোদের কথায় গিয়ে মরব ?” “পোলাপান ঠাউরেছে, না ?’-একটা কুৎসিত ইঙ্গিতে তারা যে পাকাপোক্ত পুরুষের চেয়ে বেশী কিছু সেটা প্ৰমাণ BDBD DBDBB BB S DDD DDD DB DBDBD BB DB বুড়ো হয়। গজেন তার চেয়ে পাকা । হাসাহ।াসির পর সে BBSSuqu BDDBD BDuB DS DD DDD D DDB KL না। চপলার জন্যে এ মুশকিল ।” চপলার খারাপ রোগ হয়েছে, সর্বাঙ্গে ক্ষত। দামী কাপড় পরে হাসিমুখে সে আর গায়ে গায়ে ঘুরে কািটবাজারে DDB DDDBDL BBB BYY S SLLDB DBD BD KL K কথাটা ভাববার মতো। ভাবতে ভাবতে গজেন বাড়ী বায়। বাড়ী পৌছেই তাত বাড়বার হুকুম দেখ, এখুনি তাকে কািটবাজার রওনা হতে হবে। রোজগেরে ছেলেকে বাড়ীর নোয়েরাই সাগ্রহে ভাত বেড়ে দিত। কিন্তু তার কেউ নড়বার DD DB DBg BDB BD DBLDLL DBBD SB পেতে তার ভাত বেড়ে এনে দেয়। গজেনের নতুন মা, মাসী আর পিসীরা অসন্তুষ্ট হয়ে আড়চোখে তাকায়। ছড়ি যে গজেনেরি দেওয়া নতুন রঙীন শাড়ি পরে এ বাড়িতে এসে ফর ফর করে উড়ছে, এতে তাদের চোখ জাল কয়ে আরও বেশী । ‘ফিরবে। কবে ? সভয় ভক্তিতে হাবো জিজেস করে। গলা তার প্রায় বুজে আসে আবেগে । ofs of " হাৰোঁকে নকেৰ দেখাচ্ছে না রঙীন কাপড়ে, গজেল জাৰে। মানিক-গ্ৰন্থাবলী একটু আশ্চৰ্য্য হয়েই সে মেয়েটার সারা গায়ে একবার ভাল করে চোখ বুলিয়ে নেয়া-মেয়ে খুজে বেড়াচ্ছে সে এদিক ওদিক আর তার একান্ত অনুগত এই যে একটা মেয়ে আছে, এয়া কথা তার খেয়ালও হয় নি। একবার। একটু হাবাগোৰা মেয়েটা, চোখ একটু ট্যারা, হাড়গিলের মতো রোগা শরীর । কিন্তু বয়েস তো কম। তাছাড়া, এরকম হাবা গোছের মেয়েই ভাল, সহজে বাগানো যায়, ভয় দেখিয়ে সহজে কাবু * 5C “হাবো, সঙ্গে যাবি ? কাজ করে খাৰি ? গয়না পাৰি ?” “যাবো ।” &C-i aste slav ** scă চিরদিন এই মেয়েটা কেন যে তার এত অনুগত গজেন জানে ন-পৃথিবীতে এই একজন ! কোনদিন ভাবেও না । হাবো তার কাছে অতি সন্তা, তাকে অন্ধ আবেগের সঙ্গে ভক্তি করে বলে। তার পঙ্গু, বিকারগ্রস্ত জীবনেরই একটা অঙ্গ হিসাবে মেয়েটা তারে জীবনে মিশে ছিল বরাবর। আছে তো আছে, এইভাবে । তার নতুন ব্যবসায়ের কাচা মাল হিসাবে আজ মনে মনে ওকে যাচাই করতে গিয়ে মেয়েটার সম্বন্ধে বিশেষভাবে সচেতন হয়ে উঠে তার এলোমেলে ভাবনা জাগে। কেমন আকুপাকু করে মনটা নানা বিরুদ্ধ চিন্তায় । বিধবা ভাগ্নী রাসিকে হারাধনের আস্তানায় পৌছে দিতে পারলে কী রকম হয়। রাসি খুব রূপসী, ওকে দেখলে কথাটা সে না ভেবে থাকতে পারে না। ভাবতে গেলে আবার কেমন জালাপোড়া আর অস্থির ভাব সুরু হয়। সে কি আর সত্যি নিজের ভাগ্নীকে হারাধনের কবলে দিয়ে আসবে। কিন্তু তবু ভাগ্নী ।ার জন্য সে জালাতন হয়ে উঠেছে। তাকে দেখলেই মন তার দাম কষা সুরু করে | হাবো তার সঙ্গেই বার হয়। অনেকক্ষণ হঁ। বুরে থাকায় লাল গড়িয়ে পড়েছিল, সসপ করে একবার লালা টেনে সে মুখটা বন্ধ করে দেয়। কয়েকটা বাড়ী পরেই হাবোর বাৰা দয়ালের খড়ের ঘর। গজেনের সাজে মেয়েকে আসতে দেখে দয়াল ভ্ৰকুট করে তাকায়, কিন্তু গজেন কাছাকাছি এলে তার মুখখানা বেশ অমায়িক মনে হয়। 'তেল একটি. দিলি না বাবা ?” ‘দেৰ দেৰ। পরশু কি তািরত নিয়ে আসব সাথে । কোটের বা হাতটা ঝুলিছিল। লড়বড় করে, ডগাটা পকেটে গুজে সে খাল ধারে এগিয়ে যায়। মিলিটারী, সরকারী, আধা-সরকারী আর লাইসেনী নৌকা চলছিল খাল দিয়ে। একটা নৌকাকে সে হাক দেয়, জানায় তার পাশ আছে। নৌকা ধারে এসে তাকে তুলে নেয়। কটিৰাজারে সমারোহ ব্যাপার। চারদিকে অস্থায়ী চালাঘরের অরণ্য, মাছির মতো মানুষের তিড়ি, নতুন রান্ত Fțofy