পাতা:মানিক গ্রন্থাবলী (প্রথম খণ্ড).pdf/৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


श् लून 6°ा फु। জোর। এই কদিন আগে তার বিরাট থাবার থাবড়া খেয়ে মেজছেলে সুকান্ত ভিরমি খেয়ে পড়ে গিয়েছিল । সকলের মুখের ভাব দেখে রমেন কি বুঝল সেই জানে, ক্ষমা প্রার্থনার সুরে ধীরে ধীরে বলতে লাগল, “তাই ৰলে গুরুজনদের ভক্তি করি না ভাববেন না। কিন্তু ছোট পিসীমা । মানুষের পায়ে কত ধুলোবালি ময়লা লাগে, পায়ে হাত দেয়া উচিত নয় বলে প্ৰণাম করি না । বাবাও তাই বলেন। গুরু * জনকে ভক্তি করি, পায়ের ময়লাকে তো ভক্তি করি না । একজনের পা থেকে ময়লা নিয়ে নিজের কপালে লাগানোর কোন মানে হয় ?” দিবাকরবাবু, আর সামলাতে পারলেন না, সিংহের মত গৰ্জন করে উঠলেন, ‘মানে বুঝেছি। তুমি একটি এক নম্বরের জ্যাটা ছেলে । যা, ওঘরে যা ।” রমেন যেন আশ্চৰ্য্য হয়ে গেল, একপা দিবাকরবাবুর কাছে এগিয়ে গিয়ে জিজ্ঞেস করল “রাগ করলেন পিসেমশাই ?” দিবাকরবাবুও নিৰ্বাকু বিস্ময়ে একটুক্ষণ তার দিকে DBDDS DEBD EDBD DD D BuB DB KD DDSDD বেরিয়ে গেলেন । রমেন আপন মনে বলল, “পিসেমশাই রাগ করেছেন।” সে যেন বুঝতে পারবে না কেন দিবাকরবাবু রাগ করলেন, তার যেন বিশ্বাস হচ্ছে না দিবাকরবাবু সত্য সত্যই রাগ করেছেন । বেলা তখন প্ৰায় এগাবিটা বাজে। রমেনকে নিয়ে মাথা ঘামানোর সময় কারও ীি ল না । লোক তো বাড়ীতে কম নয়, নাওয়া খাওয়ার হাঙ্গামাও তাদের সহজ নয়। তাছাড়া আশ্ৰিত হিসাবে বাড়ীতে থাকবার জন্য যে এসেছে তাকে নিয়ে অত ব্যস্ত হবার গরজই বা হবে কার। পুমেনের ট্রাঙ্কটা বৈঠকখানা থেকে ভেতরের একটা ঘরে নিতে সাহায্য করে সেই যে চাকরিটা কোথায় গেল আর তার পাত্তা নেই। দরজার সামনে দিয়ে যাবার সময় সুবালা একবার রমেনকে চান করে নিতে বলে গেল, আর কেউ খবর নিতে এল না। ঘরটা বেশী বড় নয়, দুটি চৌকি একটি টেবিল আর দুখানা রঙ করা লোহার চেয়ার আছে। দুটি চৌকিতেই বিছানা গুটানো আছে। একটি সুকোমলের, অন্যটি দিবাকর • বাবুব ছোট ভাই সুধাকরবাবুর শালা রঞ্জিতের। টেবিলের একপাশে আই, এ, ক্লাসের বই, বাকী অংশ জুড়ে স্কুলের নীচু ক্লাসের ইংরাজী বাংলা অঙ্কের মলাট ছোড়া বই আর খাতা ছড়ানো। দেয়ালে বসানো কাঠের তাক দু'টিতে ঘুড়ি লাটাই, মার্বেল, রবারের বল, টিনের কৌটা, কাগজের বাক্স থেকে সুরু করে পালিশ-চটা জুতো পৰ্যন্ত কি যে নেই বলা কঠিন। সুকোমল। আর রঞ্জিৎ এ ঘরে থাকে এবং বাড়ীর গণ্ডা দেড়েক ছেলে-মেয়ে দুবেল এ ঘরে বসে নকুল মাষ্টারের কাছে পড়াশোনা করে । সুকোমল সঙ্গে এসেছিল, তার সঙ্গে দু’চারটি কথা বলার bro চেষ্টা করে রমেন সুবিধা করতে পারল না। কাটা কাটা জৰাব দিয়ে সুকোমল কুটিল চোখে তাকে শুধু তাকিয়ে দেখতে লাগল। রমেন যখন টাঙ্ক খুলে তার বই আর কাপড় বার করছে, হঠাৎ সে চিবিয়ে চিবিয়ে মন্তব্য করল, “আমি ভাৰছিলাম তোমায় ওপরে ভাল ঘরে থাকতে দেবে ।” “ঘর খালি নেই নিশ্চয়।” SBD S BB TDKB BD DDD SBDS BDBDBDBD DBD তিন তলায় আছে। সব বড়মামার নিজের লোকের দখলেএক একজনের এক একটা ঘরে । খাটে না শুলে বড় মামার ছেলেমেয়েদের ঘুম আসে না।” “খাটে শুয়ো অভ্যাস হয়ে গেছে হয়তো।” সুকোমল ফোস করে উঠল, “আমরা কেন নীচের স্যাতস্যোতে ঘরে গাদাগাদি করে থাকিব ?” “পিসেমশায়ের ভাইও তো নীচের তলায় থাকেন ভাই।” ‘সাধে থাকেন ? বাত নিয়ে সিঁড়ি ভাঙ্গতে পারেন না বলে। ছোট মামীর ওপরে থাকেন।” রাগে অভিমানে সুকোমলেব মুখখানা বাকা দেখায, “এই তো সবে এলে । দু'দিন থাকে, টের পাবে আমাদের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করে। বাড়ীতে থাকতে দিয়েছে তাই যেন চের।” রমেন এক গাল হেসে বললে, “ধেৎ, তাই কখনো হয় ? খারাপ ব্যবহার যদি করবে, বাড়ীতে থাকতে দেবার দরকার । মনে কষ্ট দেবার জন্যে কেউ কাউকে ইচ্ছে করে বাড়ীতে রাখে নাকি ?” সুকোমল হতভম্বের মত বলল, রাখে না ?” রমেন বলল, “কোন রাখবে ? একজনকে কষ্ট দিলে নিজেরও কষ্ট হয়, মিছামিছি নিজে কষ্ট পাবে এমন বোকা কেউ নয়। ভাই। আমর’ জোর করে থাকতে আসতাম। তাহলে বরং কথা ছিল। তা তো আমরা আসিনি। আমার কথা ধরে । বাবা পিসেমশাইকে লিখলেন। আমি এখানে থাকতে পারব কি না, পিসেমশাই জবাবে আমাকে পাঠিয়ে দিতে লিখলেন। লিখলেন, কোন অসুবিধে নেই । অনাদর করবার জন্যে আমাকে ডেকে আনার তঁর কি দরকার ছিল ? বাবাকে তাহলে লিখে দিতেন সুবিধে হবে না।” কথা বলতে বলতে রমেন টেবিলে ছড়ানো বইগুলি গুছিয়ে ফেলেছে। বইখাত সমস্ত টেবিল জুড়ে ছিল, এখন দেখা গেল টেবিলে অনেক জায়গা । তাকের জঞ্জালগুলি সরিয়ে, নামিয়ে, সাজিয়ে গুছিয়ে জায়গা খালি করতে করতে রমেন হঠাৎ বলল, “তুমি ওপরের ঘরে থাকবে ভাই ? আমি ব্যবস্থা করে দেব ।” রমেন ব্যবস্থা করে দেবে। সেই যেন বাড়ীর কৰ্ত্তা { সুকোমল চটে গিয়ে একটা ব্যাঙ্গোক্তি করতে যাচ্ছিল, হঠাৎ তার মনে হল রমেন বাহাদুরী করে নি, ওপরে তার থাকবার ব্যবস্থা করার ক্ষমতায় নিজের বিশ্বাসটা শুধু প্ৰকাশ করেছে।