পাতা:মানুষের ধর্ম্ম - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।



মানুষের ধর্ম্ম

তিন

বৃহদারণ্যকে একটি আশ্চর্য্য বাণী আছে:—


অথ যোঽন্যাং দেবতাম্‌ উপাস্তে
অন্যোঽসৌ অন্যোঽহম্‌ অস্মীতি
ন স বেদ, যথা পশুরেবং স দেবানাম্‌।

—যে মানুষ অন্য দেবতাকে উপাসনা করে, সেই দেবতা অন্য আর আমি অন্য এমন কথা ভাবে, সে তো দেবতাদের পশুর মতোই।

 অর্থাৎ সেই দেবতার কল্পনা মানুষকে আপনার বাইরে বন্দী করে রাখে; তখন মানুষ আপন দেবতার দ্বারাই আপন আত্মা হতে নির্ব্বাসিত অপমানিত।

 এই যেমন শোনা গেল উপনিষদে আবার সেই কথাই আপন ভাষায় বলচে নিরক্ষর অশাস্ত্রজ্ঞ বাউল। সে আপন দেবতাকে জানে আপনার মধ্যেই, তাকে বলে মনের মানুষ। বলে “মনের মানুষ মনের মাঝে করো অন্বেষণ।”

 মানুষের ইতিহাসে এমন অনেক ধর্ম্মসম্প্রদায়ের উদ্ভব হয়েচে যারা কাঠ পাথর পূজাকে বলেচে হীনতা