পাতা:মিষ্টান্ন-পাক.djvu/২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

প্রথম পরিচ্ছেদ।

১৩


 অশ্বীদুগ্ধ।—সলবণ, মধুরাম্ল, লঘু।

 হস্তিনীদুগ্ধ।—মধুর, শুক্র-কর, পশ্চাৎ কষায়, গুরু।

 নারীদুগ্ধ।—প্রাণ-ধারক, শরীর-হিত-কর, বল-কর, তৃপ্তিজনক প্রভৃতি গুণ বিদ্যমান আছে।

 নারী-দুধের পর-ই গো-দুগ্ধের উপযোগিতা। আর্য্যেরা এই জন্য গোদুগ্ধের-ই কিছু সবিস্তারে গুণ বর্ণনা করিয়াছেন। কোন্ সময়ে কিরূপ গোরুর দুধে কিরূপ গুণ, কোন্ দ্রব্য-ভক্ষিণী গাভীর দুগ্ধের কিরূপ গুণ, তাহা-ও আর্য্য আয়ুর্ব্বেদিকেরা বিবৃত করিয়াছেন ৷

 প্রত্যূষপানে গোদুগ্ধ গুরু, বিষ্টম্ভ, রোগোৎপাদক, দুর্জ্জর; এই জন্য সূর্য্যোদয়ের পর, অর্দ্ধ প্রহর অতিবাহিত হইলে, তাহার পর গোদুগ্ধ পান করিবে; তখন গোদুগ্ধ পথ্য, লঘু এবং অগ্নি-বর্দ্ধক। বৎস-হীনা এবং বালবৎসা গাভীর দুধে দোষ আছে। যে গাভী একবর্ণ বৎস প্রসব করিয়াছে, তাহার দুধ এবং শ্বেতবর্ণ ও কৃষ্ণ বর্ণ গাভীর দুধ প্রশস্ত! যে গাভী ইক্ষু, মাষকলাই, বৃক্ষপত্র ভক্ষণ করে, যাহার ঊর্দ্ধ শৃঙ্গ, এমন গাভীর দুধ কাঁচা-ই খাও, আর জ্বাল দিয়া-ই খাও, বিলক্ষণ উপকার পাইবে।

 বাসী দুগ্ধ।—বহু-দোষ-কর, গুরু, বিষ্টম্ভ, রোগ-কর, দুর্জ্জর।

 অপক্ক দুগ্ধ।—অনেক সময় পেট ভার করে, এবং অনেক সময়ে নেত্র-রোগ উৎপাদন করিয়া থাকে। কেবল নারী-দুধ-ই অপক্ক ব্যহার্য্য, আর সকল দুধ-ই জ্বাল দিয়া ব্যবহার করিতে হইবে।

 দুধ ছয়দণ্ড কাল অতপ্ত অবস্থায় রাখিলে বিকৃত হইয়া যায়। ছয় মুহূর্ত্ত অর্থাৎ বার দণ্ডের পর দোষোৎপাদক, দশ মুহূর্ত্তের পর তাহা বিষ-তুল্য।

 নব-প্রসূতা গাভী, ছাগী প্রভৃতির দুধ মধুর বটে, কিন্তু অধিক ক্ষারযুক্ত, রুক্ষ, পিত্ত, দাহ এবং রক্ত-রোগ উৎপাদন