পাতা:মুকুট - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

মুকুট

৫৩

তৃতীয় দৃশ্য

কর্ণফুলির তীর। তরুতলে জ্যোৎস্নার ক্ষীণালোকে

 যুবরাজ। ওরে, সরিয়ে দে রে, একটু সরিয়ে দে— গাছের ডালগুলো একটু সরিয়ে দে, আজ আকাশের চাঁদকে একটু দেখে নিই। কেউ নেই। এ কি গাছেরই ছায়া না আমার চোখের উপরে ছায়া পড়ে আসছে। এখনও কর্ণফুলির স্রোতের শব্দ তো শুনতে পাচ্ছি এই শব্দটিতেই কি পৃথিবীর শেষ বিদায়সম্ভাষণ শুনব ইন্দ্রকুমার। ভাই ইন্দ্রকুমার। এখনও তোমার রাগ গেল না!

ইন্দ্রকুমারের প্রবেশ

 ইন্দ্রকুমার। দাদা। দাদা।

 যুবরাজ। আঃ, বাঁচলুম, ভাই। তুমি আসবে জেনেই এত দেরি করেই বেঁচেছিলুম। তুমি অভিমান করে গিয়েছিলে বলেই আমি যেতে পাচ্ছিলুম না। কিন্তু অনেক রাত হয়ে গেছে, ভাই, এবার তবে ঘুমোই— মা কোল পেতেছেন।

 ইন্দ্রকুমার। দাদা, মার্জনা করলে কি।