পাতা:মুর্শিদাবাদের ইতিহাস-প্রথম খণ্ড.djvu/৫৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

8సెby মুর্শিদাবাদের ইতিহাস । দের আবাসস্থান স্থাপন করিয়াছিলেন ; রাঘবের পুত্র রুদ্র তাহার কৃষ্ণনগর নাম প্রদান করেন । এই কৃষ্ণনগরে অস্থাপি নদীয়া রাজবংশীয়ের অবস্থিতি করিতেছেন। রুদ্রের মৃত্যুর পর তাহার জ্যেষ্ঠ পুত্র রামচন্দ্র, পরে তৎসহোদর রামজীবন রাজা হন। সুবেদার ও হুগলীর ফৌজদারের সাহায্যে রামজীবনকে যুদ্ধে পরাস্ত ও ঢাকার কারাগারে প্রেরণ করিয়া তাহার বৈমাত্রেয় ভ্রাতা রামকৃষ্ণ নদীয়ার জমীদারী লাভ করেন। এই রামকৃষ্ণের সময় সভা সিংহের বিদ্রোহ উপস্থিত হয়। রাজস্বপ্রদানে অশক্ত হওয়ায় রামকৃষ্ণ ঢাকায় বন্দী হইয়া কারাগারে প্রাণত্যাগ করিলে, র্তাহার ভ্রাত রামজীবন করামুক্ত হইয়া পুনৰ্ব্বার পৈতৃক জমীদারী প্রাপ্ত হন। কিন্তু রাজস্বপ্রদানের ক্রটির জন্য র্তাহাকেও দ্বিতীয়বার মুর্শিদাবাদে বন্দী অবস্থায় থাকিতে হয়। সেই সময়ে তাহার পুত্র রঘুরাম রাজসাহীর উদয়নারায়ণের বিরুদ্ধে যুদ্ধযাত্রা করিয়া কুলী খার নিকটে প্রশংসা লাভ করিয়াছিলেন। রামজীবনের পর রঘুরাম কৃষ্ণনগর জমীদারী প্রাপ্ত হন, এবং তঁাহাকেও রাজস্বপ্রদানের অশক্ততার জন্য অনেক বার কারাযন্ত্রণা ভোগ করিতে হইয়াছিল। রঘুরামের সহিতই নবাব মুর্শিদকুলী খা নদীয়া জমীদারীর বন্দোবস্ত করেন। রাজা রঘুরামের পুত্রই দেশপ্রসিদ্ধ মহারাজ কৃষ্ণচন্দ্র। নদীয়া জমীদারীর মধ্যে চাকল হুগলীর অন্তর্গত উখড়া, এঙ্গুরিয়া, ইসলামপুর, ঘাটিয়া, কিসমৎ কলিকাতা, মাগুরাগড়, পাঁচপুর, নদীয়া, মুলতানপুর ইত্যাদি, চাকলা যশোহরের অন্তর্গত বাঘমার, ধুলিয়াপুর, চারঘাট ইত্যাদি, চাকলা মুর্শিদাবাদের অন্তর্গত বেলগ, বহুরুল ইত্যাদি, চাকলা ভূষণার অন্তর্গত হুলদা, চণ্ডিয়া, জগন্নাথপুর প্রভৃতি ও চাকলাবৰ্দ্ধমানের কুতুবপুর ইত্যাদি, এবং ঘোড়াঘাটের ইমৃফসাহী