পাতা:মেদিনীপুরের ইতিহাস প্রথম ভাগ.djvu/২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
ভৌমিক বিবরণ।

মেদিনীপুর জেলার অন্তর্গত বর্ত্তমান তমলুক নগরটি প্রাচীন দামোলিপ্ত বা তাম্রলিপ্ত নগরের হীন পরিণতি।[১]

 সুহ্ম ও তাম্রলিপ্তরাজ্যের উত্তর ও পশ্চিমে পুণ্ড্র রাজ্য, পূর্ব্বে বঙ্গরাজ্য, দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর এবং দক্ষিণ-পশ্চিমে কলিঙ্গ-রাজ্য, এইরূপ নির্দ্দেশই জানা যাইতেছে। নগেন্দ্রবাবু লিখিয়াছেন, “কলিঙ্গ-রাজ্য বর্ত্তমান তমলুকের সীমান্ত হইতে আরম্ভ হইয়া দক্ষিণে গোদাবরী নদী পর্য্যন্ত বিস্তৃত ছিল।”[২] তাহা হইলে দেখা যাইতেছে, তখন বর্ত্তমান মেদিনীপুর জেলার উত্তর ও পূর্ব্ব ভূভাগের অধিকাংশই সুহ্ম ও তাম্রলিপ্ত রাজ্যের অন্তর্ভূত হইয়াছিল। অবশিষ্টাংশ—যাহা তমলুকের দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থিত, উহাই কেবল কলিঙ্গ-রাজ্যের অন্তর্গত ছিল। উত্তরকালে এই বিভাগেরও পরিবর্ত্তন হয়।

 পরবর্ত্তিকালের সাহিত্যে আমরা উৎকল ও উড্র নামে আরও দুইটি রাজ্যের নিদর্শন পাই। রঘুবংশে কালিদাস কপিশা নদীর পরপার উৎকল-রাজ্য।হইতেই উৎকলের সীমা নির্দেশ করিয়াছেন। কপিশা নদী বর্ত্তমান মেদিনীপুর জেলার মধ্য দিয়া প্রবাহিত কাঁসাই বা কংসাবতী নদীর নামান্তর। কালিদাসের বর্ণনামতে উৎকলদেশের দক্ষিণেই কলিঙ্গ-রাজ্য ছিল। রঘুবংশে দেখিতে পাওয়া যায়, রঘু স্বীয় রাজধানী হইতে সুহ্মদেশ পর্য্যন্ত সমস্ত রাজ্য জয় করিয়া পূর্ব্ব-মহাসাগরের তালীবনশ্যাম উপকণ্ঠে সুহ্মরাজ্যে আসিয়া উপস্থিত হইয়াছিলেন। পরে উৎকলবাসিগণ তাঁহার পথ প্রদর্শক


  1. Asiatic Researches vol VIII. p. 33 I.
    Ancient India as described by P'tolemy by J. Crindle p. 169.
  2. জন্মভূমি পত্রিকা—১ম খণ্ড ৪৪৮ পৃষ্ঠা।