পাতা:মেয়েলি ব্রত ও কথা - পরমেশপ্রসন্ন রায়.pdf/১০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ধনপতি সওদাগর , ৯৫ ৷৷ ঠাকুরাণি ! আর আমাদের কষ্ট দিও না, কা’ল যেন ছাগল ও ভেড়া খুজে পাই ; নইলে মা'র কাছে আমরা আর s দেখাতে পারবো না । তাই শুনে সকলে হেসে বল্লেন, এ কি রকম বয় চাওয়া হলো । তারা মেয়েটাের দিকে তাকিয়ে বল্লেন, যদি বর চাইতে হয় তবে ( বিয়ের ) বরই চাও । তোমরা দু’জনে এই বর মাগ, ভেয়ের জন্যে বৌ আর বোনের জন্যে বর সঙ্গে ক’রে বিদেশ থেকে বাপ শীগগির ফিরে আসুন । রাত্রে আহারের পর বাড়ীর মেয়েরা বল্লেন, নাটাই ঠাকরুণের আশীৰ্ব্বাদে কা’ল তোমাদের নিশ্চয়ই সুপ্ৰভাত হবে। • আমরা, গরীব মানুষ, তোমাদের জন্যে তাড়াতাড়ি বেশী রকম খাবার আয়োজন করতে পাল্লেম না ; আমাদের ক্ৰেটী গ্ৰহণ করে। না । সওদাগরের ছেলে ও মেয়ে বল্লে, আজ অসময়ে পড়ে তোমাদের জুন খেয়েছি, চিরকাল তোমাদের গুণ ও নাটাই ব্ৰতের কথা মনে থাকবে । পরদিন ভোরে উঠে সকলে দেখলেন, , ছাগল ও ভেড়া ঘরের পেছনে দাড়িয়ে রয়েছে । আর তখনি খবর পাওয়া গোল দেশের সওদাগরদের অনেক নৌকা বিদেশ থেকে বাড়ী আসছে। তাই শুনে ছাগল ও ভেড়া রেখে দুই ভাই বোন নদী তীরে ছুটে গেল। এক খানির পর আর এক খানি ক’রে অনেকগুলি সুন্দর পণ্য-বোকাই নৌকা , গুন টেনে ধীরে ধীরে গ্রামের দিকে আসছিল। তারা একে একে সব নৌকার মাঝিদের ডেকে জিজ্ঞেস কলে, ধনপতি সওদাগরের নৌকা কোথায় ? কেউ बाङ्ग, गर्ने নৌকার পর ; আবার কেউ বলে, পাঁচ শৌকীর পর । তার পর ধনপ্রতি সপ্তদাগরের নৌকা এসে পাইছিল ।