পাতা:মেয়েলি ব্রত ও কথা - পরমেশপ্রসন্ন রায়.pdf/৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अभिय-देिखा . se डशृंन बक्रo cलां*ांद्र शर्धी शकृिहद्म মুক্তার হার পরিয়ে ষোড়শোপ' कांप्न भूखे कब्रएलन । cन क्नि डिमि निब्रांभिष अiशब्र क'ब পৃথিবীতে প্রচার ক’রে দিলেন, ষষ্ঠীব্রতের দিন মাংস দূরে থাক কেউ মাছও যেন না খায়। এই ব্ৰত যে করবে। সে পুত্রকন্যা নিয়ে পরম সুশ্নে কালব্যাপন করবে । * প্ৰণাম । জয়দেবি জগন্মাতঃ ইত্যাদি । unahinaning নাগ পঞ্চমী ব্ৰত । শ্রাবণ মাসের কৃষ্ণ পঞ্চমীতে এই ব্রত করণীয় । বর্ষ। সমাগমে সৰ্পগণ ক্ষেত্র ও অরণ্যের বিবর পরিত্যাগ পূর্বক লোকালয়ে বাস করিতে অগ্রসর হইয়া থাকে । চোর অগ্নি ও ব্যাঘ্ৰভয় প্রভূতি বিপদে সতর্কতা অবলম্বন বরং সুসাধ্য। কিন্তু একমাত্র মনসাদেবীর কৃপা ভিন্ন সৰ্পভয় হইতে মুক্তিলাভের গর্ত্যন্তর নাই | এক শ্রাবণ মাসেই নিমবঙ্গে সর্পদংশনে অধিকাংশ অকালমৃত্যু সঙ্ঘটিত হইয়া থাকে। সুতরাং এই সময় । গ্রামবাসী দিগকে অতিশয় শঙ্কিত অবস্থায় কালব্যাপন করিতে হয়। পল্লবাসিনীগণ শাস্ত্ৰবিহিত, কৃষ্ণা পঞ্চমীতে একবার মাত্র ব্ৰত করিয়াই নিশ্চিন্ত থাকিতে পারেন না। তাহারা ভীতি-সন্থল শ্রাবণের আদি এবং অন্তেও (আষাঢ় ও শ্রাবণ সংক্রাত্বি দ্বয়ে )

  • আশা করা যায় উপরোক্ত ব্ৰত কথা পাঠ করিয়া অস্তুতঃ দু’একটীি উদ্ধান্ত হিন্দু মুকক “হোটেল” বা মাংস-বিপণির আহার স্পাহা সংযত করিতে চেষ্টা कठिदन्।