পাতা:মেয়েলি ব্রত ও কথা - পরমেশপ্রসন্ন রায়.pdf/৮৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


पूई डशिनी- १७' ' অমুনার দুঃখের সীমা নাই। কাল রাজরাণী ছিলেন, আজি পথের ভিকিরি। তিনি ভাবলেন, এখন যাই কোথা। বাপের বাড়ী ঠাই নাই । এমন যে রাজয়াজেশ্বর সোয়ামী, তিনিও আমায় ত্যাগ করলেন । হায়, এ দুঃখের কথা কার কাছে বলি । যমুনা এক মায়ের পেটের বোন, অনেক দিন তার সঙ্গে দেখা নাই ৷ তাকে একবার না দেখে কোথাও যাব না । এই ভেবে তিনি তার ছেলেটিকে কোলে ক’রে কোঙালীর বেশে মন্ত্রীর বাড়ীর দিকে চল্লেন । অন্দরের দরজায় গিয়ে তার বুক দুর দুর করতে লাগলো। খিড়কির পুকুর পাড়ে বসে ভাবতে লাগলেন, ভগিনী কি আমায় এ বেশে চিনতে পারবে । তখন দেখলেন। যমুনার দাসী তার মানের জল নিয়ে যাচ্ছে। তিনি নিজের হাতের আংটি লুকিয়ে কলসীর ভিতর ফেলে দিলেন । । যমুনা ঘঙ্গে বসে স্নান কোরছিলেন। জল ঢালতেই অমুনার ংটি তারাগায়ে পড়লো । তিনি দাসীকে বোকে উঠলেন, ঝি,২ বল দেখি তোর কি আক্কেল, তুই “তুক” করেছিল না কি ? মানের জলের ভেতর আংটি দিলি কেন ? দাসী ভয়ে জড়সড় হয়ে বলে, ঠাকুরুণ আমি তো কিছুই জানি না। তবে পুকুর পাড়ে। একটা মেয়ে ও একটী ছোট ছেলে বসৈ রয়েছে এই জানি । মেয়েট দেখতে তোমারই মতন সুন্দর, গরীব অথচ দামী গহনা BB S BDDBB BDBD BDB BD BDDD BDDSS SDBDD DBDDD BBB দেখলেন ও দিদিকে চিনতে পারলেন । আমনি ছুটে গিয়ে তাকে ও তাঁর ছেলেকে পরামু সমাদরে ঘরে নিয়ে এলেন । , অনেক বুদ্ধির পরে দুই ভগিনীর পরস্পর দেখা । চােকৈৱ” জল মুছতে মুছতে ‘কুত সুখ হুঃখের কথা তারা বলিতে লাঞ্চি GF