পাতা:যশোহর-খুল্‌নার ইতিহাস প্রথম খণ্ড.djvu/৩০২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

২৩২ যশোহর-খুলনার ইতিহাস। প্রতিষ্ঠা করেন। ইহা দ্বারা বর্তমান খুলনা জেলার অন্তর্গত বৈদ্যপ্রধান সেন হাটি গ্রামকেই লক্ষ্য করা হইয়াছে বলিয়া মনে হয়। কিন্তু যখন লক্ষ্মণসেন রাজা তখন কি সেনহাটি গ্রামে লোকের বাস ছিল ? এই স্থান প্রথমে জলমগ্ন ছিল, তাহারই মধ্যে গ্রামের উদ্ভেদ হইতে থাকে। এই জলমগ্ন স্থানকে ছুচহাটির বিল বলিত। পরে যেখানে জমির পত্তন হইয়া ক্রমে জঙ্গল হইয়া গেল, তথায় আসিয়া চক্রবত্তিগণ জঙ্গল কাটাইয়া বাস করেন ; উহারাই এখানকার “কাটিকাট বাসিন্দা”, এজন্য উহাদের উপাধি হয়, “কাটানি।” ইহার কাটানি গাইভুক্ত ব্রাহ্মণ। কাটানিগণ এখন একটি স্বতন্ত্র পাড়ায় বাস করিতেছেন। ক্রমে এখানে অ? ব্রাহ্মণ ও নিম্নশ্রেণীর কায়স্থগণের বাস হইতে থাকে। তৎপরে বৈদ্য ধন্বন্তরি বংশের পূৰ্ব্ব পুরুষ কৌলিন্তে খ্যাতিমান হিঙ্গুসেন এখানে আসিয়া বাস করেন। * হিঙ্গুসেন হইতে এক্ষণে ১৯ পুরুষ হইয়াছে। বৈদ্যবংশের উন্নতি, বাল্যবিবাহ ও বংশবৃদ্ধি বিবেচনা করিয়া প্রত্যেক পুরুষে ২৫ বৎসর ধরিলে উহাতে কোন ক্রমে ৫০০ বৎসরের অধিক হয় না। কিন্তু লক্ষ্মণসেন সাত শত বৎসরের পূৰ্ব্বে প্রাচুভূত হইয়াছিলেন। সুতরাং লক্ষ্মণসেনের আমলে সেনহাটি নাম ছিল কিনা বিচারসাপেক্ষ। হয়ত লক্ষ্মণসেনের সময়ে সেখহাটর নামই হইয়াছিল, সেনহট্ট। পরে সেস্থান সেখহাটি হইয়া গেলে হিঙ্গুসেনের সময় হইতে ছুচহাটির নাম হয় সেনহাটি। অবশু ইহাকে অনুমান ভিন্ন আর কিছুই বলিতে পারি না। । মুসলমান ঐতিহাসিকের লিখিয়াছেন, লক্ষ্মণসেন পাঠান বিজয়ের পর নবদ্বীপ হইতে শাখনাটে পলাইয়া যান। এই শাখনাট কি সেনহাট, শাখহাট বা শঙ্করহাট হইতে পারে না ? মদনপাড় ও ইদিলপুরের তাম্রলিপি হইতে জানিতে পারি সেন রাজগণের পূর্ণ নাম ছিল—অরিরাজবৃষভ শঙ্কর গৌড়েশ্বর বিজয়সেন দেব, অরিরাজনিঃশঙ্ক শঙ্কর গৌড়েশ্বর বল্লালসেন দেব, অরিরাজস্থদন শঙ্কর গৌড়েশ্বর লক্ষ্মণসেন দেব, অরিরাজ-অসহ শঙ্কর গৌড়েশ্বর কেশবসেন দেব এবং অরিরাজ বৃষভান্ধ শঙ্কর গৌড়েশ্বর বিশ্বরূপসেন দেব। সকলের নামেতে শঙ্কর আছে। সেনরাজ-প্রতিষ্ঠিত স্থান শঙ্করহট্ট হওয়া সম্ভব নহে কি ? কেহ কেহ শাঁখিনাটকে 察 • “রাঢ়ং ত্যক্ত সেনট নগরীমধুবাস সঃ।” কটিকণ্ঠহার প্রণীত “সৰ্যৈকুলপঞ্জিকা"-৪৭ পৃঃ।