পাতা:যশোহর-খুল্‌নার ইতিহাস প্রথম খণ্ড.djvu/৩৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

ՀԳo যশোহর-খুলনার ইতিহাস। ও চওঁীবরপুর, খুলনায় মঘিয়া, বনগ্রাম, চিংড়াখালি এবং বরিশালে রায়েরকাটিতে এই একই বংশের অতুল সন্মান। শেষোক্ত চারিস্থানে ইহার রাজোপাধিধারী এবং মঘিয়া, বনগ্রাম, চিংড়াখালি ভৈরবের কূলে অবস্থিত। শঙ্করপাশার নিকটে বর্ণীবিছালীর সিংহবংশ বিখ্যাত। ইহারাই তথাকার বস্তুদিগের প্রতিষ্ঠাতা। এখান হইতেই ইহার ভৈরবকুলে বেলফুলিয়ার অন্তর্গত আইচগতিতে বাস করেন, তথায় ৪ তাহারা কুলীনগণের প্রতিষ্ঠাতা ও সম্পত্তিশালী এবং দেব-দ্বিজ-সেবক। ভৈরবদিয়া আর একটু অগ্রসর হইলে পাইকপাড়ার দত্তগণ বিশেষ খ্যাতিসম্পন্ন। ইহারা দত্তদিগের বটগ্রাম সমাজভুক্ত, ঢাকুরিয়ার মজুমদারগণ এই বংশীয়। বালী সমাজের দত্তগণ যশোহর-খুলনায় বহুস্থানে বাস করিয়াছিলেন। তন্মধ্যে ভৈরবকুলেই তাছাদের বাস অধিক। বাসড়ী, মুক্তাশ্বরী ও সিদ্ধিপাশার দত্ত, সেনহাটির মুস্তৌফি এবং রাঙ্গদিয়া ও শ্রীপুর-বনগ্রামের দত্তগণ এখনও স্ব স্ব স্থানে সমাজের প্রধান ব্যক্তি এবং বহু কুলীন ও ব্রাহ্মণের আশ্রয়দাতা। এই দত্তবংশীয়েরাই কালনার দত্ত এবং নড়াইলের জমিদার । সিদ্ধিপাশার অপর পারে দামোদরের ব্রহ্ম, আর একটু অগ্রসর হইলে বারাকপুরের সেন, মহেশ্বরপাশার গুহবংশীয় মজুমদারগণ বিশেষ সন্মানিত। ইহারা বহু কুলীন আনিয়া বসতি করাইয়াছিলেন। মহেশ্বরপাশায় ঘোষ বসু মিত্ৰ সৰ্ব্বজাতীয় কুলীনের বাস । ভৈরবপথে আরও অগ্রসর হইলে বেলকুলিয়ার ভদ্রগতিতে ভদ্রবংশীয় কায়স্থগণ পূৰ্ব্বকালে ক্ষমতাশালী ছিলেন। বেলকুলিয়ার রায়চৌধুরী উপাধিধারী বস্নবংশীয় জমিদারগণ এই ভদ্রদিগে প্রতিষ্ঠিত। তৎপরে নন্দনপুরের নদীগণ এক সময়ে বিশেষ সন্মানিত ছিলেন, তাহারা তথায় বসু ও মিত্র কুলীনদিগকে প্রতিষ্ঠিত করেন। ভৈরবপথে আলাইপুর ত্যাগ করিয়া পূৰ্ব্বমুখে অগ্রসর হইলে, মৌভোগের আদি বাসিন্দা বিষ্ণুবংশীয় বিনোদ খা । তিনিই এখানে বাগাওসিমাজের বস্তুকুলীন দিগকে প্রতিষ্ঠিত করেন। বিনোদ বিষ্ণু পাঠান আমলে খাঁ উপাধি ও প্রভূত ভূসম্পত্তি জায়গীর পান। যশোহরের অন্তর্গত পাজিয়ার বিষ্ণুগণ এই একই বংশীয়। মেভোগের পর নলধার ভঞ্জ চৌধুরিগণ বিখ্যাত। তাহার এক সময়ে সমগ্র খড়রিয়া পরগণার অন্যতম জমিদার ছিলেন ; নলধার ও নিকটবর্তী স্থানে তাহারা বহু কুলীন কায়স্থকে বসতি করাইয়াছিলেন। কালীগঞ্জের निकहेक्टैं। নলতার ভগ্নগণ এই একই কুলোদ্ভূত। সেই নলতার নামানুসারে এখানে