পাতা:যাত্রাবদল - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

ԳՖ) যাত্রাবদল পাতাইয়াছেন-প্ৰথম পক্ষের অবাধ্য ছেলে বাচুক বা মরুক, তার পক্ষে সমান কথা । কিন্তু বন্দিনাথের পিসি কঁাদা-কাটা সুরু করাতে তিনি দ্বিতীয় পক্ষের বড় শালাকে রাজসাহীতে পাঠাইয়া দেন। সে যাত্ৰা বন্দিনাথ বাচিয়া উঠিল, চুলওঠা জীৰ্ণ-শীর্ণ চেহারা লইয়া বাড়ীও ফিরিল কিন্তু মাস তিনেকের মধ্যেই আবাব উধাও, আবার নিখোেজ। এবারও আব্ব এক যাত্ৰাদলে বছব খানেক ঘুবিয়া বোদে নগদ সতেরোটি টাকা হাতে করিয়া বাড়ী আসিল ও সৎমায়ের কাছে জমা রাখিল । অত বড় ছেলে বাড়ী বসিয়া খায্য ও দু’। তিনদিন অন্তব সৎমায়ের কাছে পযসা চাহিয়া লয়, আজ আট আনা, কাল তিন আনা, তারপব দিন এক টাকা। চুল ছাটিতে হইবে, শার্ট তৈবী করিতে দিতে হইবে, বন্ধু-বান্ধবে খাইতে চাহিয়াছে, নানা অজুহাত । আসলে জানা গেল যে, বিড়ি সিগারেটেই ব্যদিনাথের মাসে চারি-পাচ টাকা - লাগে। তা ছাড়া চা, বাবুগিরি, সাবান, কলিকাতায় যাওয়া ইত্যাদি আছে। সে সতেরো টাকার মধ্যে টাকা দুই সংসারেব সাহায্যে লাগিয়াছিল, বাকীটা বন্দিনাথের ব্যক্তিগত সখের খরচ যোগাইতে ব্যয়িত হয়। সেজ মামার সংসারের অবস্থা খুব স্বচ্ছল নয়, দুই টাকায় যখন বন্দিনাথ সাত মাস বসিয়া খাইল এবং নিজের টাকা ফুবাইলে জোর-জুলুম গাল-মন্দ করিয়া বিমাতাব নিকট হইতে আরও দু’চার টাকা আদায় করিল-তখন সেজমামা স্পষ্ট জানাইয়া দিলেন তাহাকে এরূপ ভাবে বসিয়া খাওয়াইতে তিনি পরিবেন না । বদিনাথ সে কথায় কৰ্ণপাত না করিয়া আরও সাত মাস বসিয়া সংসাবের অন্নধ্বংস করিল, খুব নিশ্চিন্ত মনেই করিল-আরও কয়েক টাকা সৎমায়েব নিকটে আদায় করিল, বৈমাত্র ভাই-বোনের সঙ্গে ঝগড়া বিবাদ মার-ধোব করিল-শেষে সেজ মামার শ্বশুর বাড়ীর ( শ্বশুর বাড়ীর গ্রামেই সেজ মামা ইদানীং বাস করিয়াছিলেন) কাহার পকেট হইতে টাকা চুরি করিয়া একদিন দুপুরে আহারাদির পরে কোথায় নিরুদ্দেশ হইয়া গেল। সে আজ বছর দুই আগেকার কথা ।