পাতা:রঙ্গমল্লী.djvu/১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আয়ুষ্মতী ఏ ঋষিদাসী বতসে : সাজাইয়া ঘর দ্বার, গুছাইয়া বিবিধ তৈজস, কাঞ্চন ভাজন যত একে একে করি পরিস্কার রাখিয়াছি ঠায়ে ঠায়ে, আছে সব তোর প্রতীক্ষায় ; রেখেছি স্ফটিক পাত্রে কুলুঙ্গিতে ফুলের স্তবক,— কোণে, সোপানেব বঁাকে, ঠাই ঠাঙ্গরিয়া মনে মনে, ধীরে ধীরে বহুদিন ধরে তুলেছি সুন্দর করি ; ঘুরিতে ফিরিতে অতর্কিতে পুষ্পগন্ধে খুলী হবে মন তোর । পশমেব অঙ্গবtখা, শাড়ী রেশমের রাখিয়াছি রৌদ্রে দিয়ে ; সিন্দুকের গুপ্ত অন্ধকারে হাসিতেছে মণিমুক্ত—সঞ্চিত সে যুগ যুগান্তের । যাবে তুমি মা আমার । পরিচিত আপনার ঘরে ; অচেনার মত সেথা পড়িলে না গোলোক-ধাধায় । আমি আর কটা দিন ? যাব তীর্থে চলে— আয়ুষ্মতী ( হাতে হাত লইয়া ) সে হবে না । ঋষিদাসী ভাল, বাছ, তেরি কথা থাক –তেরি কথা থাক তবে। গৃহিণী ! গৃহের লক্ষ্মী ! আমি শুধু ভাবি, আয়ুষ্মতী,মার মন,—আমি ভাবি “আয়ুষ্মতী—অল্পবয়সী সে যত্ন সে কি পরিবে করিতে মোর পুত্রে মোর মত ?” জানি আমি কিশোর হৃদয়—ভালবাসা সুগভীর