পাতা:রঙ্গমল্লী.djvu/৩৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৬ ब्रछमध्नी ( ধীরে ধীরে দ্বার খুলিয়া পুরঞ্জয় গৃহ-সোপনে আসিয়া দাড়াইলেন ; হাতে ও বস্ত্রে রক্তচিহ্ন । ) পুরঞ্জয় বন্ধুগণ ! আমি আজ তোমাদের জয়োল্লাস মাঝে বাজার না বিসম্বাদী স্বর,—নিজের শোকের কথা ক’য়ে ; সাম্রাজ্যের আনন্দের দিনে ক্ষুদ্র সংসারের দুঃখকথা,—দমন করিতে চাই আপনার মনে ; শুধু এই রক্তসিক্ত কর করিয়া উদ্যত উদ্ধে জানাব একটি কথা ! দেবতার অলঙ্ঘ্য আদেশ হয়েছিল মোর পরে,—জয়ী হ’লে লিচ্ছবির রণে ফিরে এসে নিজগৃহে যাহারে দেখিব সব আগে বলি তারে হ’বে দিতে আপনার হাতে দেবোদেশে । ভেটিলাম যারে, হায়, সে আমার আপন সন্তান । অলঙ্ঘ্য দেবের আজ্ঞা ; তাই তারে এই মাত্র আমি বলি দিছি দেবোদেশে, কাটিয়াছি একটি আঘাতে । মনে হয়, পায়নি অধিক বাথ আয়ুষ্মতী মোর। এই যে রক্তের লেখা হাতে, উত্তরীয়ে,-—এ আমার কস্তার বুকের রক্ত,—একমাত্র সস্তানের লোহ। পুত্র নাই, পত্নী পরলোকে, সংসারে নাহিক কেহ ; নিঃসঙ্গ নির্ভর-হারা দুই হাতে তবু লব আমি জয়ের মুকুটখানি ; জয়ী আমি,—পরিব সে শিরে। তারপর একদিন শিথিল-শীতল হাত হ’তে খসি সে পড়িবে ভূমে, স্মৃতিশেষ হ’বে মোর নাম ঃ সেই অনাগত কালে মনে রেখো, হে বৈশাণীবাসী ।