পাতা:রজত-গিরি.djvu/১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

১২

রজত-গিরি।


অনুচর।

কেঁদ না কেঁদ না প্রভু—মুছ অশ্রুজল।
স্বর্গের অপ্সরা যথা কেশ-গুচ্ছ-দাম
ভালবাসে জড়াইতে পারিজাত দিয়া,
কিন্তু যতক্ষণ আসি বসন্ত পবন
নাহি করে সে কুমুমে জীবন প্রদান
না পারে তুলিতে তাহা—সেই রূপ প্রভু
সময় হইলে সিদ্ধ হবে মনস্কাম,
হৃদয়ের প্রেম-জ্বালা জুড়াবে আপনি।

(প্রস্থান)
দ্বিতীয় দৃশ্য—অরণ্য। (মুকুন্দের প্রবেশ)
মুকুন্দ।

ওরে আমার প্যাঁচা-মুখী, খ্যাঁদা-নাকী, শুয়র-চোখি, খ্যাঙরা
ঠোঁটি প্রাণ-প্রিয়সী! ওঠ—আমাকে কি কিছু খেতে টেতে দিবি?
আমি পাহাড়ে শীকার কত্তে যাচ্চি, লক্ষ্মী আমার শীগ্‌গির ওঠো।

মানিনী।

হতভাগা আপ্ত-গর্জে মিন্‌সে কোথাকারে! কিসের জন্য
এত তাড়াতাড়ি? দেখচিসনে আমি শীতে থরথর করে কাঁপচি,
গায়ে একটা ছেঁড়া ন্যাকড়া, এতে কি শীত আটকায়? আবার
তাতে এই দুপুর রাত্তির, ব্যাপারখানা কি বল দিকি? আর আমি
তোর জ্বালা সইতে পারি নে। যত দিন না তুই ভাল ব্যাভার