পাতা:রজনী - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


  • )\ు রজনী'।

আহলাদ করিতে লাগিলেন। আমার মাথায় আকাশ ভাঙ্গিয়া পড়িল। . তার পরদিন স্থির করিলাম আর আমি লবঙ্গের কাছে যাইব ন!—মনে মনে তাহাকে শতবার পোড়ারমুখী বলিয়া গালি দিলাম। লজ্জার মরিয়া যাইতে ইচ্ছা করিতে লাগিল। রাগে লবঙ্গকে মারিতে ইচ্ছা করিতে লাগিল । দুঃখে কাল্লা আসিতে লাগিল। আমি লবঙ্গের কি করিয়াছি,যে সে আমার উপর এত অত্যাচার করিতে উদ্যত ? ভাবিলাম যদি সে বড় মানুষ বলিরা, অত্যাচার করিরাই সুখী হর, তবে জন্মান্ধ দুঃখিনী ভিন্ন, আর কি অত্যাচার করিবার পাত্ৰ পাইল না ? মনে করিলাম, ন, &র একদিন যাইব, তাহাকে এমনই করিয়া তিরস্কার করিয়! আলিব—তার পর আর যাইব না—আর ফুল বেচিব না—আর তাহার টাকা লইব ন—ম যদি তাহাকে ফুল দিয়া মূল্য লইরা আসেন তবে, তাহার টাকার অন্ন ভোজন করিব না—না থাইয়া মরিতে হয়—সেও ভাল। ভাবিলাম, বলিব, বড়মানুষ হইলেই কি পরপীড়ন করিতে হয় ? বলিব, আমি অন্ধ—অন্ধ বলিয়া কি দয়া হয় না ? বলিব পৃথিবীতে যাহার কোন সুখ নাই, তাহাকে বিনাপরাধে কষ্ট দিয়া তোমার কি স্নাথ ? যত ভাবি, এই এই বলিব, তত আপনার চক্ষের জলে আপনি ভাসি। মনে ভয় হইতে লাগিল, পাছে বলিবার সমর কথাগুলি ভুলির যাই । যথাসমরে, আবার রামসদর বাবুর বাড়ী চলিলাম। ফুল লইয়। যাইব না মনে করিয়াছিলাম—কিন্তু শুধু হাতে যাইতে লজ্জা করিতে লাগিল—কি বুলিয়া গিয়া বসিব । পুৰ্ব্বমত কিছু ফুল লইলাম। কিন্তু আজি মাকে লুকাইয়া গেলাম। ফুল দিলাম—তিরস্কার করিব বলিয়। লবঙ্গের কাছে বসিলাম । কি বলিয়া প্রসঙ্গ উত্থাপন করিব ? হরি! হরি }