পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/২০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তদেতৎ সত্যং তদস্মৃতং তৱেদ্ধব্যং সোম্য বিদ্ধি । তিনি সত্য, তিনি অমৃত, র্তাহাকে বিদ্ধ করিতে হইবে, হে সৌম্য, তাহাকে বিদ্ধ কর । ধনুগ্রহীত্বেীপনিষদং মহাস্ত্রং— উপনিষদে যে মহাস্ত্র ধন্থর কথা আছে সেই ধন্থ গ্রহণ করিয়া— শরং হু্যপাসানিশিতং সন্ধয়ীত— উপাসনা দ্বারা শাণিত শর সন্ধান করিবে ! আয়ম্য তদ্ভাবগতেন চেতসা লক্ষ্যং তদেবাক্ষরং সোম্য বিদ্ধি ! তদ্ভাবগত চিত্তের দ্বারা ধনু আকর্ষণ করিয়া লক্ষ্যস্বরূপ সেই অক্ষর ব্রহ্মকে বিদ্ধ কর । এই উপমাটি অতি সরল। যখন শুভ্ৰ সবলতমু আৰ্য্যগণ আদিম ভারতবর্ষের গহন মহারণ্যের মধ্যে প্রবেশ করিয়াছেন, যখন হিংস্র পশু এবং হিংস্র দস্থ্যদিগের সহিত র্তাহাদের প্রাণপণ সংগ্রাম চলিতেছে তখনকার সেই টঙ্কারমুখর অরণ্যনিবাসী কবির উপযুক্ত এই উপমা ! এই উপমার মধ্যে যেমন সরলতা তেমনি একটি প্রবলতা আছে। ব্রহ্মকে বিদ্ধ করিতে হইবে—ইহার মধ্যে লেশমাত্র কুষ্ঠিত ভাব নাই। প্রকৃতির একান্ত সারল্য এবং ভাবের একাগ্র বেগ না থাকিলে এমন অসঙ্কোচ বাক্য কাহারো মুখ দিয়া বাহির হয় না। প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা দ্বারা যাহারা ব্রহ্মের সহিত অন্তরঙ্গ ঘনিষ্ঠ সম্বন্ধ স্থাপন করিয়াছেন তাহারাই এরূপ সাহসিক উপমা এমন সহজ এমন প্রবল সরলতার সহিত উচ্চারণ করিতে পারেন। মৃগ যেমন ব্যাধের প্রত্যক্ষ লক্ষ্য, ব্রহ্ম তেমনি আত্মার অনন্ত লক্ষ্যস্থল ৷ তদ্বেদ্ধব্যং সোম্য বিদ্ধি–ব্রহ্মকে বিদ্ধ করিতে হইবে ! অপ্রমত্তেন বেদ্ধব্যং শরবত্তন্ময়ো ভবেৎ। প্রমাদ-শূন্ত হইয়া তাহাকে বিদ্ধ করিতে হইবে এবং শর যেমন লক্ষ্যের মধ্যে প্রবেশ করিয়া আচ্ছন্ন হইয়া যায় সেইরূপ ব্রহ্মের মধ্যে তন্ময় হইয়া যাইবে । উপমাটি যেমন সরল, উপমার বিষয়গত কথাটি তেমনি গভীর। এখন সে অরণ্য নাই, সে ধমু:শর নাই ; এখন নিরাপদ নগরনগরী অপরূপ অস্ত্রশস্ত্রে স্বরক্ষিত। কিন্তু