পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীক্স-রচনাবলী טאס Oh, must thou have my soul, Dear, commingled with thy soul ? Red grows the cheek, and warm the hand,...the part is in the whole !... Nor hands nor cheeks keep separate, when soul is joined to soul. Mrs. Browning. लग्नी । লক্ষ্মী, তুমি শ্ৰী, তুমি সৌন্দৰ্য্য, আইস, তুমি আমাদের হৃদয়-কমলাসনে অধিষ্ঠান কর । তুমি যাহার হৃদয়ে বিরাজ কর, তাহার আর দারিদ্র্য ভয় নাই ; জগতের সৰ্ব্বত্রই তাহার ঐশ্বৰ্য্য । যাহারা লক্ষ্মীছাড়া, তাহার হৃদয়ের মধ্যে দুর্ভিক্ষ পোষণ করিয়া টাকার থলি ও স্থূল উদর বহন করিয়া বেড়ায় । তাহারা অতিশয় দরিদ্র, তাহার মরুভূমিতে বাস করে ; তাহাদের বাসস্থানে ঘাস জন্মায় না, তরুলতা নাই, বসন্ত অর্ণসে না । তুমি বিষ্ণুর গেহিনী। জগতের সর্বত্র তোমার মাতৃস্নেহ। তুমি এই জগতের শীর্ণ কঠিন কঙ্কাল প্রফুল্ল কোমল সৌন্দর্ঘ্যের দ্বারা আচ্ছন্ন করিতেছ। তোমার মধুর করুণ বাণীর দ্বারা জগৎ-পরিবারের বিরোধ বিদ্বেষ দূর করিতেছ। তুমি জননী কি না, তাই তুমি শাসন হিংসা ঈর্ষা দেখিতে পার না। তুমি বিশ্বচরাচরকে তোমার বিকশিত কমলদলের মধ্যে আচ্ছন্ন করিয়া অকুপম সুগন্ধে মগ্ন করিয়া রাখিতে চাও। সেই সুগন্ধ এখনি পাইতেছি ; অশ্রপুর্ণনেত্রে বলিতেছি, “কোথায় গো ! সেই রাঙা চরণ দুখানি আমার হৃদয়ের মধ্যে একবার স্থাপন করু, তোমার স্নেহহস্তের কোমল স্পর্শে আমার হৃদয়ের পাষাণ-কঠিনতা দূর কর।” তোমার চরণ-রেণুর হুগন্ধে স্ববাসিত হইয়া আমার হৃদয়ের পুষ্পগুলি তোমার জগতে তোমার স্বগন্ধ দান করিতে থাকুক্‌ ! এই যে, তোমার পদ্মবনের গন্ধ কোথা হইতে জগতে আসিয়া পৌছিয়াছে। চরাচর উন্মত্ত হইয়া মধুকরের মত দল বাধিয়া গুণ গুন গান করিতে করিতে স্থনীল আকাশে চারিদিক হইতে উড়িয়া চলিয়াছে ! antistemmin